নৌপথে যাত্রি পারাপারে আমরা সন্তুষ্ট—নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

1

যুগবার্তা ডেস্কঃ অতীতের অভিজ্ঞতার আলোকে কিছু পদক্ষেপ নেয়ায় নৌপথে যাত্রি পারাপারে আমরা সন্তুষ্ট। পুরোপরি না হলেও অসন্তুষ্ট নই। বিশেষ করে নৌপথে ফেরিতে জট ছিলনা। ঈদে ফেরির কর্মকর্তা-কর্মচারিরা বিশ্রাম করেনি, তারা যাত্রিসেবায় নিজেদের বিশ্রামকে উৎসর্গ করেছেন। ফেরিতে সিরিয়াল মেইনটেনের ব্যাপারে আমরা বেশ তৎপর ছিলাম, যার কারণে কোন সমস্যা হয়নি।
নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি আজ মন্ত্রণালয়ে ঈদ শুভেচ্ছা শেষে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে এসব কথা বলেন।
এসময় অন্যান্যের মধ্যে মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আবদুস সামাদ উপস্থিত ছিলেন।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, নির্বিঘ্নে যাত্রি পারাপারে আমরা সবসময় সচেষ্ট ছিলাম এবং আছি। তিনি যাত্রিদের উদ্দেশে বলেন, ঈদ শেষে ফিরতি পথে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কেউ লঞ্চে উঠবেন না। চিন্তা করে পদক্ষেপ নিবেন, সতর্কতার সাথে চলাচল করবেন।
খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, এডিস মশা ও ডেঙ্গু জ্বর নিয়ে মানুষের মধ্যে অস্থিরতা আছে। কিন্তু ঈদের আনন্দের কমতি দেখিনি। প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ শেখ হাসিনার সরকার সঠিকভাবে দেশ পরিচালনা করছে। ২০ হাজারের মতো ডেঙ্গু রোগি সেবা পাচ্ছে।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ নিরাপদ দেশ, এখানে নিরাপত্তাহিনতার কিছু নেই। রেল ও সড়ক পথে কিছুটা সমস্যা থাকলেও আকাশপথে কোন ফ্লাইট চলাচলে সমস্যা হয়নি। সড়কপথে টাঙ্গাইলের সমস্যাটি মূলত বঙ্গবন্ধু সেতুতে ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে টোল আদায় ও গরুবাহি ট্রাক পারাপারের কারনে। ভবিষ্যতে বঙ্গবন্ধু সেতুতে টোল আদায়ে অটোমেশন পদ্ধতি চালু হলে এ সমস্যা অনেকটা কমে আসেব।
কোরবানির পশুর চামড়ার বিষয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাণিজ্য মন্ত্রণালয় চামড়া রপ্তানির সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আশা করা যায় সমস্যা থাকবেনা। তিনি বলেন, কোন কোন রাজনৈতিক দলের নিজেদের কর্মকান্ড পরিচালনায় সংকট রয়েছে। নিজেদের সংকট চাপাতে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে রাজনীতি করছে। এসব নিয়ে রাজনীতি করার কিছু নেই। মানুষের পাশে দাঁড়ানোটাই হলো বড় রাজনীতি।