ডেঙ্গু আমাদের নাগরিক সমস্যা–শিক্ষা উপমন্ত্রী

2

জবি প্রতিনিধিঃ ডেঙ্গু আমাদের নাগরিক সমস্যা তাই এই সমস্যা নিয়ে আমাদের নিজ নিজ অবস্থান থেকে কাজ করতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন মাননীয় শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী।

আজ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) ‘নিজ আঙ্গিনা পরিষ্কার রাখি, সবাই মিলে সুস্থ থাকি’ স্লোগানে ডেঙ্গু বিষয়ক সচেতনতা সৃষ্টি ও মশক নিধন কর্মসূচিতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

এসময় তিনি আরো বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কীট বিশেষজ্ঞগণ স্থানীয় মন্ত্রণালয়ের সাথে কাজ করলে মশা ধমনে স্থায়ী সমাধান সম্ভব হবে। আমাদের শিক্ষায় গবেষণায় যে বরাদ্ধ দেয়া হয়েছে তা কাজে লাগিয়ে এডিশ মশা নিধনে কাজ করতে হবে। কীটতত্ত্ববিদরা এক হয়ে স্থানীয় সরকারের সাথে কাজ করলেই ডেঙ্গুর স্থায়ী সমাধান সম্ভব।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমানের সভাপতিত্বে ও রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মোঃ ওহিদুজ্জামান এর সঞ্চালনায় এ কর্মসূচিতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাননীয় শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চেীধুরী।

সভাপতির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান বলেন, মশা নিধনে নতুন যে ঔষধ আনা হবে তাতে মশা মরবে কিনা আমার সন্দেহ আছে। আমার মতে মশা ধমনে একমাত্র উপায় হচ্ছে আমাদের সচেতনতা। আমরা নিজ নিজ যায়গা থেকে সচেতন হলে এ সমস্যা সমাধান সম্ভব হবে।

তিনি আরো বলেন, আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের কোন শিক্ষার্থী ডেঙ্গু আক্রান্ত হলে আমাদের সাথে যোগাযোগ করবেন আমরা যে কোন ধরনের সহাযতা করার চেষ্টা করবো।

এছাড়াও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক মোঃ সেলিম ভূইয়াঁ,লাইফ এন্ড আর্থ সাইন্স অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. কাজী সাইফুদ্দীন প্রাণিবিদ্যা বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোঃ আবদুল আলীম প্রমূখ বক্তব্য রাখেন। এসময় সচেতনামূলক আলোচনায় প্রাণিবিদ্যা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম ডেঙ্গু বিস্তার ও প্রতিরোধ বিষয়ক তাঁর গবেষণা প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।

এরপর শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমানের নেতৃতে ভাষা শহীদ রফিক ভবনের সামনে থেকে ডেঙ্গু সচেতনতা র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি পুরো ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল গেইটে গিয়ে শেষ হয়। এসময় বিভিন্ন বিভাগের চেয়ারম্যান, শিক্ষকবৃন্দ এবং শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।