মোংলায় শিশু আহাদের মাথায় পানি জমে ফুলে যাচ্ছে

6

মোঃ নূর আলমঃ মোংলা পোর্ট পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডের শাহাজাল পাড়ার ”আদুরীর” অতি আদরের দেড় বছরের শিশু সন্তান আহাদ অর্থাভাবে চিকিৎসা বঞ্চিত হয়ে ধীরে ধীরে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ছে। চিকিসকরা রোগ নির্ণয় করতে পারলেও আহাদের দিন মজুর পিতা-মাতা তার চিকিৎসা করাতে পারছেনা। দেশের সর্বোচ্চ চিকিৎসা কেন্দ্র বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিশু নিউরোলজি বিভাগে ভর্তি হয়েছিলো আহাদ। কিন্তু টাকার অভাকে সেখান থেকে ফিলে এসেছে রুগী আহাদ। মাথায় পানি জমে অস্বাভাবিক ভাবে ফুলে যাচ্ছে। চিকিৎসার অভাবে যে কোন সময়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়তে পারে শিশু আহাদ। এমতাবস্থায় আহাদের চিকিৎসার জন্য তার দিন মজুর পিতা-মাতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাহায্য চেয়েছেন।
মোংলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স’র স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ জীবিতেষ বিশ্বাস জানান আক্রান্ত শিশুটির রোগের নাম হাইড্রোকেপালাস। এতে মাথায় পানি জমে, মাথা ফুলে যায়। চিকিৎসা না করালে নার্ভ ড্যামেজ হয়ে শারিরীক ও বুদ্ধিবৃত্তিক বিকাশ ঠিক মতো হয় না। চিকিৎসা দ্রুত দরকার। আমাদের দেশে চিকিৎসা সম্ভব। এটি একটি সার্জিক্যাল চিকিৎসা। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় এবং ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কম টাকায় চিকিৎসা সম্ভব। প্রাইভেট ক্লিনিকে আড়াই লাখ টাকার মতো খরচ হবে। আদুরীর শিক্ষক এবং প্রতিবেশী শেলাবুনিয়া বটতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ মনিরুল ইসলাম বলেন বাচ্চার মা আমার প্রতিবেশী এবং আমার স্কুলের ছাত্রী ছিলো। তার অসুস্থ শিশু সন্তানের চিকিৎসা পরিবারের পক্ষে সম্ভব না। উচ্চ বিত্ত এবং বিবেক মানুষেরা এগিয়ে আসলে চিকিৎসা হতে পারে।
আক্রান্ত শিশু আহাদের মা আদুরী বলেন তার ছেলের মাথায় পানি জমেছে। টাকার জন্য চিকিৎসা হচ্ছে না। প্রধানমন্ত্রী চিকিৎসা করিয়ে তার ছেলেকে যেন মায়ের কোলে ফিরিয়ে দেন এটা আদুরীর দাবী। আর আদুরীর পিতা মোঃ রফিক জানান অপারেশন করলে তার ছেলের অসুখ ভালো হবে। তিনি দিন মজুর। যা আয় করে তা দুধ কিনতে কিনতে শেষ হয়ে যায়। গণতান্ত্রিক বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনেক অসহায় মানুষের পাশে এসে দাড়ান। তাই প্রধানমন্ত্রীর কাছে সন্তানের সুচিকিৎসা দাবী অসহায় পিতা রফিকের।