উজিরপুরে আসামীরা জামিনে এসে বাদীর পরিবারকে এলাকা ছাড়ার হুমকী

1

উজিরপুর প্রতিনিধিঃ উজিরপুরে গৃহবধুকে হামলার ঘটনায় মামলার আসামীরা জামিনে এসে বাদীর পরিবারকে এলাকা ছাড়ার হুমকী দিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গত মঙ্গলবার বিকেল ৫ টায় মামলার আসামী মশিউর রহমান হাওলাদার, সোনিয়া বেগম, ফরিদা বেগম, সালমা বেগম, নার্গিস বেগম, শহিদুল ইসলাম, এনাম হাওলাদার, আবুল কালাম বেপারী জামিনে এসে প্রকাশ্যে বসত বাড়ীর সামনে বাদী আপিয়া বেগম সহ পরিবারের সকল সদস্যকে বিভিন্ন ভয়ভীতি এবং এলাকা ছাড়ার হুমকী দেয়। এ ঘটনায় আতংকে বাদীর পরিবার। প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন অসহায় পরিবার।

উল্লেখ্য, ৭ জুন শুক্রবার বেলা পৌনে ১২টায় প্রকাশ্যে দঃ ধামুরা গ্রামের আরিফুর রহমান হাওলাদারের ভোগদখলীয় বসতঘর ভাংচুর করে জোড় পূর্বক দখলের পায়তারা চালায় একই বাড়ীর ঐ ভূমিদস্যু সন্ত্রাসীরা। এসময় আরিফুর রহমানের বোন আপিয়া বেগম (৩৫) বাঁধা দিলে তাকে পিটিয়ে গুরত্বর আহত করে। এমনকী পরিবারের লোকজন প্রতিবাদ করলে রওশন জাহান রনি ও ঝর্না আক্তারকেও পিটিয়ে আহত করে এবং নগদ ৪২ হাজার টাকা ও ১ ভরি ওজনের স্বর্ণের চেইন সহ লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুটে নিয়ে যায় এবং পরবর্তীতে প্রানে মেরে ফেলার হুমকী দিয়ে বীরদর্পে চলে যায়। জানা যায় আরিফুর রহমানের সাথে মশিউর রহমান গংদের দীর্ঘদিন যাবৎ জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিল। এমনকী আরিফুর রহমানের বিরুদ্ধে ঐ বিরোধীয় জমি নিয়ে আদালতে ১১৪/২০১৮ নং একটি মামলা দায়ের করেন মশিউর রহমান হাওলাদার গংরা । ওই মামলায় থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে এবং বিরোধীয় জমির কাগজপত্র দেখে আরিফুর রহমান পক্ষে প্রতিবেদন প্রদান করলে ক্ষিপ্ত হয়ে প্রভাবশালী ভূমিসদ্যু সন্ত্রাসীরা একদল ভাড়াটিয়ে সন্ত্রাসীরা নিয়ে এ তান্ডব চালায় ।

মারধরের ঘটনায় উজিরপুর মডেল থানায় আপিয়া বেগম বাদী হয়ে মামলা করলে মোঃ সোনিয়া বেগম ও নার্গিস বেগম কে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করে। জামিনে এসে আসামিরা বাদী সহ তার পরিবারকে এলাকা ছাড়া করার হুমকী দেয় বলে অভিযোগ করেন।