সকল অঞ্চল থেকে খোলা বাজার থেকে ধান ক্রয়ের আহবান

6

কৃষকের ধানের ন্যায্য মূল্যের দাবিতে জাতীয় কৃষক সমিতির সভাপতি নুরুল হাসান, কার্যকরী সভাপতি মাহমুদুল হাসান মানিক ও সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম গোলাপ আজ এক বিবৃতিতে বলেন, সদ্য উৎপাদিত বোরো ধানের ন্যায্যমূল্য বা সরকার নির্ধারিত মূল্য না পেয়ে কৃষকেরা বেসামাল দিশাহীন হয়ে পড়েছেন। হতাশাগ্রস্থ কৃষক ধানের ক্ষেতে আগুন লাগিয়ে মনের ক্ষোভ প্রকাশ করছেন। পরিস্থিতি এমন জায়গায় দাড়িয়েছে তাতে কৃষকদের মধ্যে অনেকেই ন্যায্যমূল্যে ধান বেঁচতে না পেরে দায় দেনা মাথায় নিয়ে সর্বশান্ত হয়ে আত্মহত্যা করার মতো পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে আছে। বড় বড় চালকল মালিকদের সিন্ডিকেট বাজার নিয়ন্ত্রণ করে ধানের বাজার মূল্যহীন করে তুলেছে অতি মুনাফা করার ও উচ্চমূল্যে চাল বিক্রি করবে বলে। সরকারের দ্বিমুখী নীতি চাল ব্যবসায়ী ও মিল মারিকদের স্বার্থে কৃষককে সর্বশান্ত করছে। কৃষি মন্ত্রণালয়-খাদ্য মন্ত্রণালয় ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সমন্বয়হীনতা এবং বাণিজ্য ও খাদ্য মন্ত্রণালয়ের মধ্যস্বত্বভোগী, টাউট ব্যবসায়ী কমিশন এজেন্টদের স্বার্থে দুর্নীতির রমরমা ব্যবস্থাপনা ˆতরি করেছে, যার সঙ্গে যুক্ত রয়েছে রাজনৈতিক নেতা, মন্ত্রী ও আমলারা। কৃষকদের দুর্দশা সৃষ্টিতে ঐ গোষ্ঠীর ভূমিকাই প্রধান। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কৃষক স্বার্থে উচ্চবাচ্য করলেও ঐ সকল মন্ত্রণালয়ে দুর্নীতির স্বার্থের সন্ধি ভাঙছে না।

জাতীয় কৃষক সমিতি অনতিবিলম্বে সরকার ঘোষিত ধান ক্রয়মূল্যে সকল অঞ্চল থেকে খোলা বাজার থেকে ধান ক্রয়ের আহবান জানাচ্ছে। জরুরি ভিত্তিতে কৃষকদের স্বার্থে ভর্তুকি ঘোষণার দাবি করছে।