শনিবার ফুটপাতে বসার হুঁশিয়ারি

5

যুগবার্তা ডেস্কঃ প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা বাস্তবায়ন, নেতৃবৃন্দের নামে একাধিক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে আজ বেলা ১২টায় সংবাদ সম্মেলন করেছে হকার ইউনিয়ন।রাজধানীর পুরানা পল্টনস্থ মুক্তিভবনের প্রগতি সম্মেলন কক্ষে এ সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য উত্থাপন করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সেকেন্দার হায়াৎ। লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা ইতোমধ্যে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন বা¯Íবায়ন করলেও ঢাকা দক্ষিণ সিটির মেয়র জনাব সাঈদ খোকনের একগুয়েমী মনোভাব ও মাথা গরমের কারণে অধিকাংশ স্থানে বাস্তবায়িত হয়নি। লিখিত বক্তব্যে মেয়রকে উদ্দেশ্য করে বলা হয় একগুয়েমী মনোভাব পরিহার করুন, মাথা ঠান্ডা রাখুন এবং রমজান চলছে উত্তর সিটির মত দক্ষিণেও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা বাস্তবায়ন করুন। আমরা আশা করি ১০ মে-এর মধ্যে মেয়র সাহেব তা করবেন যদি না করেন তাহলে আগামী ১১ মে শনিবার থেকে হকাররা নিজস্ব ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে ফুটপাতে বসে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা বাস্তবায়ন করবে। হামলা, নির্যাতন কিংবা বাধা দিলে আগামী ১৩ মে সোমবার থেকে ঢাকা মহানগরীতে রাজপথ অবরোধ, হরতালসহ কঠোর কর্মসূচি দিয়ে ঢাকা শহর অচল করে দেওয়া হবে যার সব দায়-দায়িত্ব জনাব সাঈদ খোকনকে নিতে হবে।
লিখিত বক্তব্যে আরও বলা হয়, বাংলাদেশ হকার্স ইউনিয়ন পাঁচ বছর মেয়াদী হকার পুনর্বাসন মহাপরিকল্পনার কথা বলেছে। ফুটপাতের হকারদের পুনর্বাসনের জন্য স্বল্প মেয়াদে এবং দীর্ঘ মেয়াদে দুই ধাপে অগ্রসর হতে হবে। তবে তারো আগে প্রকৃত হকারদের তালিকাভুক্ত করে তাদের পরিচয়পত্র প্রদান করতে হবে। এটাই পুনর্বাসন প্রক্রিয়ার প্রথম এবং সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কাজ। এই কাজের সফলতার উপর নির্ভর করবে গোটা পুনর্বাসন প্রক্রিয়ার সফলতা। পথ বিক্রেতা সুরক্ষা আইন করে তালিকাভুক্ত হকারদের কাছ থেকে মাসিক ভিত্তিতে অর্থ নিয়ে সেটার সঙ্গে রাষ্ট্রীয় ভর্তুকি যুক্ত করে স্থায়ীভাবে তাদের জন্য ব্যবস্থা করা যায়। ভারতে হকারদের জন্য করা ২০১৪ সালের আইন আমরা বিবেচনায় নিতে পারি। ব্যবসার ধরণ অনুযায়ী স্বল্প মেয়াদে স্থান নির্দিষ্ট করে তাদের ধীরে ধীরে ফুটপাত থেকে স্থানান্তর করা যেতে পারে। এইপথে সিটি কর্পোরেশন অগ্রসর হলে বাংলাদেশ হকার্স ইউনিয়ন সর্বোচ্চ সহযোগিতা করবে।
লিখিত বক্তব্যে হলিডে মার্কেট সম্পর্কে বলা হয়, কিছু অশুভ ব্যক্তি ও মহল আইডিয়ালসহ কিছু এলাকায় হলিডে মার্কেট বসানোর কথা বলে ইতিমধ্যে জনপ্রতি ১০ হাজা টাকা করে নিয়ে বিপুল পরিমাণ অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে। আপনারা জানেন পূর্বে কয়েকটি স্থানে হলিডে মার্কেট দেয়া হলেও অর্থবাণিজ্য, চাঁদাবজি, অব্যবস্থাপনার কারণে তা সফল হয়নি। জিহাদ ও সুজন নামে দুই হকার হলিডে মার্কেটে বসতে যেয়ে শহীদী মৃত্যুবরণ করেছিলেন। এখন আবার সে মহলই এই অপতৎপরতায় মিলিত হয়েছে। আর হকাররাও হলিডে মার্কেট চায় না। প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী আন্দোলনরত হকারদের চাওয়া ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের নির্দিষ্ট স্থানে অর্থাৎ ফুটপাতে সরকারি ছুটির ২ দিন পূর্ণদিবস হকাররা বসবে এবং বাকী ৫ দিন অফিস ছুটির পর অর্থাৎ রমজান মাসে সাড়ে তিনটা থেকে এবং অন্যসময় বিকাল ৫টা থেকে ফুটপাতের তিন ভাগের এক ভাগ জায়গায় হকাররা বসবে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সভাপতি আব্দুল হাশেম কবীর, সহ-সভাপতি আবুল কালাম, শহীদুল ইসলাম, আহাম্মদ আলী, আনোয়ার হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. জসিম উদ্দিন, কেন্দ্রীয় নেতা রফিক হাওলাদার, শহীদ খান, শাহাদাৎ হোসেন, মো. বাবুল, লিটন মিয়া ও মো. তাপস প্রমুখ।