৫২ টি গার্মেন্টস শ্রমিক সংগঠনের প্রতিক্রিয়া

4

যুগবার্তা ডেস্কঃ সম্প্রতি জাতীয় সংসদে উত্থাপিত “বাংলাদেশ ইপিজেড শ্রম আইন ২০১৯” বিলে সরকার তার দায়িত্ব পাশ কাটিয়ে ইপিজেড কর্তৃপক্ষকে অধিক গুরুত্ব আরোপ করা হয়েছে। যাহা শ্রম ও শিল্প সম্পর্কিত জাতীয়-আন্তর্জাতিক আইন ও নীতিমালা পরিপন্থি। প্রস্তাবিত আইন প্রয়োগে সরকারী নীতিমালার পরিবর্তে বেপজা কর্তৃপক্ষ প্রণীত প্রবিধানের কথা বলা হয়েছে। যাহা সরকারের দায়িত্বকে অবহেলা করা হয়েছে। এ ছাড়াও প্রস্তাবিত আইন শ্রম ও শিল্প সম্পর্ক উন্নয়নের পরিবর্তে বিনিয়োগকারীর স্বার্থকে গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। প্রস্তাবিত আইনের অনেক ধারা ও উপধারা হয়েছে যাহা প্রচলিত শ্রম আইন ও মৌলিক মানবাধিকার পরিপন্থি। এই আইন পাশের পূর্বে জনমত যাচাই কারা প্রয়োজন। তা না হলে এই আইন পাশ হলে দেশে-বিদেশে নানা প্রশ্নের জন্ম দিবে। এ ব্যাপারে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সহ সম্মানিত সংসদ সদস্যদের প্রতি সদয় দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলো।
আজ তোপখানা রোডে ৫২টি গার্মেন্টস শ্রমিক সংগঠনের যৌথ সভায় এ অভিমত ব্যক্ত করা হয়।

সভায় সভাপতিত্ব করেন শ্রমিক নেতা আবুল হোসাইন। সভায় উপস্থিত ছিলেন শ্রমিক নেতা কামরূল আহসান, এম দেলোয়ার হোসেন, রফিকুল ইসলাম সুজন, সুমাইয়া ইসলাম, খাদিজা রহমান, কাজী রুহুল আমিন, লাভলি ইয়াসমিন, তপন সাহা, শহিদুল ইসলাম, নাজমা বেগম, মিজানুর রহমান, মোহাম্মদ সেলিম প্রমুখ।