প্রথমবার এইচআইভি আক্রান্ত কোষ ধংসের দাবি বিজ্ঞানীদের

14

রাশিদ রিয়াজ : প্যারিসের ইনস্টিটিউট পাস্তুর’এর বিজ্ঞানীরা বলছেন এইচআইভি আক্রান্ত কোষ ধংসের মধ্যে দিয়ে সম্ভবত তারা এ রোগটির অব্যর্থ ওষুধ তৈরি করতে সক্ষম হবেন। সেল মেটাবোলিজম নামের বৈজ্ঞানিক জার্নালে তাদের প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, বিজ্ঞানীদের এ সফলতা এইচআইভি রোগীদের মনে সেরে ওঠার ব্যাপারে আশার সঞ্চার করবে। এখন পর্যন্ত এইচআইভি রোগের কোনো ওষুধ না থাকলেও চিকিৎসকরা এ্যান্টিরিট্রোভাইরালসের মাধ্যমে চিকিৎসার চেষ্টা করছেন। স্টার ইউকে

৯০ দশকে এইচআইভি শনাক্তের পর চিকিৎসকরা এর ইনফেকশন যাতে ছড়িয়ে না পড়ে সে চেষ্টা করলেও মানবদেহ থেকে এর কোষকে অপসারণ করতে সক্ষম হননি। ইমিউন সিডিফোর টি কোষ নামে পরিচিত এ কোষকে ফ্রান্সের বিজ্ঞানীরা ধংস করতে পেরেছেন বলে প্রথমবারের মত দাবি করছেন। এখন তা এইচআইভি সারিয়ে তুলতে গুরুত্বপূর্ণ এক পদক্ষেপ হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে। তবে বিজ্ঞানীরা যে ভাইরাস প্রয়োগ করেছিলেন তা মানবশরীরের সবগুলো সিডিফোর টি কোষকে পুরোপুরি নিশ্চিহ্ন করতে পারেনি। তবে এধরনের কোষের আচরণ ও বৈশিষ্ট নির্ধারণ করতে পেরেছেন বিজ্ঞানীরা। এইচিআইভি কোষগুলোর উচ্চমাত্রার বিপাকীয় কার্যকলাপ ও গ্লুকোজের পরিমাণ বেশি থাকায় তা এইচআইভি সংক্রামিত হতে সাহায্য করে। এক্ষেত্রে বিজ্ঞানীরা কোষটির লিম্পোসাইটের কার্যকলাপকে থামিয়ে দিয়ে সংক্রমণ প্রতিরোধী করতে সক্ষম হয়েছেন যা অবশেষে এএচআইভি নির্মূল করতে সাহায্য করবে।-আমাদের সময়.কম