নৌকায় ভোট দিলে দক্ষিণ জনপদের মানুষের কর্মসংস্থান হবে–খুলনা মেয়র

1

মোংলা থেকে মোঃ নূর আলমঃ নৌকায় ভোট দিলে দক্ষিণ জনপদের মানুষের কর্মসংস্থান হবে। ভোট দেয়ার আগে বিবেচনা করতে হবে। বিএনপি-জামাতকে ভোট দিলে কেউ এলাকায় থাকতে পারবেন না। মোংলা বন্দর সচল না থাকলে এ অঞ্চলের মানুষের অস্তিত্ব থাকবেনা। এই বছরের মধ্যেই মোংলার ২৬টি স্কুল-কলেজ-মাদ্রাসার নতুন ভবন নির্মান করা হবে। বিজয় দিবসের মাস ডিসেম্বরে রাজাকার-আলবদররা দূর্বল থাকবে। কিন্তু বিজয়ের মাসে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসীরা সক্রিয় থাকবে। দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আন্তরিকতার ঘাটতি নেই। বুধবার সকালে মোংলা উপজেলা ও পৌর আওয়ামীলীগের আয়োজনে দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত কর্মী সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক এ কথা বলেন।

বুধবার সকাল ১১টায় অনুষ্ঠিত কর্মী সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সুনিল কুমার বিশ্বাস। কর্মী সম্মেলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাগেরহাট-৩ এর সংসদ সদস্য আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আ্ওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী বেগম হাবিবুন নাহার, বাগেরহাট জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মোঃ ইদ্রিস আলী ইজারদার, উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওলাদার, পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি সেখ আব্দুস সালাম, সাধারণ সম্পাদক বাগেরহাট জেলা পরিষদ সদস্য সেখ আব্দুর রহমান, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মিসেস কামরুন্নহার হাই এবং উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইব্রাহিম হোসেন।

অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ইউপি চেয়ারম্যান নিখিল চন্দ্র রায়, মোল্লা মোঃ তারিকুল ইসলাম, মোঃ ইস্রাফিল হোসেন হাওলাদার, যুবলীগ নেতা শেখ কামরুজ্জামান জসিম, মহিলা যুবলীগের সুমীলীলা, স্বেচ্ছাসেবকলীগের শেখ ইমরান বিশ্বাস ও ছাত্রলীগ নেতা শিকদার ইয়াছিন আরাফাত।

কর্মী সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন মোংলা প্রেসক্লাব সভাপতি এইচ এম দুলাল, আ্ওয়ামীলীগ নেতা অধ্যাপক গাজী ˆতয়াবুর রহমান, এ্যাডঃ সেখ আব্দুস সালাম, গাজী সেলিনা হোসেন, কাজী গোলাম হোসেন বাবলু, সাখাওয়াত হোসেন মিলন, যুবলীগ নেতা মোঃ ইকবাল হোসেন, ছাত্রলীগ নেতা কে এম এইচ রানা, স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা মোঃ মিজানুর রহমান তালুকদার প্রমূখ।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তালুকদার আব্দুল খালেক আরো বলেন, জাতীয় সংসদ নির্বাচনে উপজেলা, পৌর এবং কেন্দ্র ভিত্তিক কমিটি গঠন করতে হবে। নির্বাচন পরিচালনা কমিটিতে সক্রিয় রাজনৈতিক কর্মী ছাড়া মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের দেশপ্রেমিক, প্রগতিশীল, গণতান্ত্রিক, অসামম্প্রদায়িক ব্যক্তি, সাংবাদিক, শিক্ষক, বুদ্ধিজীবিসহ বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষকে রাখতে হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় বেগম হাবিবুন নাহার এমপি বলেন বিজয়ের মাসে অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বঙ্গবন্ধুর নৌকাকে বিজয়ী করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারকে আবারো দায়িত্ব পালনের সুযোগ দিতে হবে। কর্মী সম্মেলনের শেষ পর্যায়ে আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন পরিচালনার জন্য অধ্যক্ষ সুনিল কুমার বিশ্বাসকে আহবায়ক এবং মোঃ ইব্রাহিম হোসেনকে সদস্য সচিব করে উপজেলা কমিটি, সেখ আব্দুস সালামকে আহবায়ক এবং সেখ আব্দুর রহমানকে সদস্য সচিব করে পৌর কমিটি গঠন করা হয়।