নিয়মিত সাত শতাংশের উপর প্রবৃদ্ধি অর্জন করায় যুক্তরাজ্যের দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক ট্রেড কমিশনারের প্রশংসা

0

যুগবার্তা ডেস্কঃ বাংলাদেশের এখন জনমিতিক লভ্যাংশ কাল চলছে যা ২০৬১ সাল পর্যন্ত থাকবে। দেশের তরুন তরুনীদের বিভিন্ন ট্রেড প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে দক্ষ জনবল হিসেবে গড়ে তুলতে। সরকার ১০০টি বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপন করছে। বিনিয়োগ সহজতর ও ব্যবসার বান্ধব পরিবেশ সৃষ্টিতে বিভিন্ন বাধাকে সরকার অপসারণ করে যাচ্ছে।

আজ ব্রিটিশ সরকারের বাণিজ্য সংক্রান্ত একটি প্রতিনিধিদল মাননীয় পরিকল্পনামন্ত্রীর সাথে তাঁর দপ্তরে সাক্ষাৎ করলে মাননীয় পরিকল্পনামন্ত্রী ট্রেড কমিশনারকে বাংলাদেশ সফরের জন্য ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে এসব কথা বলেন। মাননীয় পরিকল্পনামন্ত্রী যুক্তরাজ্যের বাণিজ্য বিষয়ক প্রতিনিধিকে বাংলাদেশের বিনিয়োগ পরিবেশের সর্বদিক চিত্র তুলে ধরেন।

ব্রিটিশ প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে ছিলেন যুক্তরাজ্যের দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক ট্রেড কমিশনার ঈৎরংঢ়রহ ঝরসড়হ প্রতিনিধি দলে আরও ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাজ্যের হাই কমিশনার অষরংড়হ ইষধশব। সাক্ষৎকালে দুদেশের মধ্যেকার দীর্ঘদিনের বাণিজ্য সম্পর্কে তুলে ধরেন এবং বাংলাদেশের ব্যক্তি খাতের ভূয়সী প্রশংসা করেন। সরকারের বাণিজ্য নীতি এবং বিদেশী বিনিয়োগ আকর্ষণে গৃহীত পরিকল্পনা বিষয়েও তিনি প্রশংসা করেন। নিয়মিত সাত শতাংশের উপর প্রবৃদ্ধি অর্জন করায় ঈৎরংঢ়রহ ঝরসড়হ মাননীয় পরিকল্পনা মন্ত্রীকে অভিনন্দন জানান।

মাননীয় পরিকল্পনা মন্ত্রী, যুক্তরাজ্যের ব্যবসায়ী প্রতিনিধি দলকে বাংলাদেশ সফরের জন্য আমন্ত্রণ জানান। তিনি শিক্ষা, রেল এবং বিদ্যুৎ খাতে বিনিয়োগের জন্য যুক্তরাজ্যের ব্যক্তি খাতকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। ট্রেড কমিশনার মাননীয় পরিকল্পনা মন্ত্রীকে আশ্বস্ত করেন যে তিনি ফিরে গিয়ে যুক্তরাজ্যের ব্যক্তিখাতে-কে বাংলাদেশের সম্ভাবনার কথা জানাবেন এবং শিক্ষা, রেলওয়ে এবং বিদ্যুৎ খাতে। বিশেষ করে সোলার পাওয়ারে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ-কে সহযোগিতার নিশ্চয়তা প্রদান করেন।