পিইসি পরীক্ষা বাতিলের দাবিতে ছাত্রফ্রন্টের বিক্ষোভ সমাবেশ

4

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিঃ পিইসি পরীক্ষা বাতিলের দাবিতে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট আজ সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সহ-সভাপতি ডা: জয়দীপ ভট্টাচার্য। বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক রাশেদ শাহরিয়ার, ইডেন কলেজ শাখার সাধারণ সম্পাদক সায়মা আফরোজ ও সমাবেশ পরিচালনা করেন সংগঠনের দপ্তর সম্পাদক সালমান সিদ্দিকী।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, গত ১৮ নভেম্বর থেকে সারাদেশে শুরু হয়েছে পিইসি পরীক্ষা । ২০০৯ সালে শিক্ষাবিদ, অভিভাবক, শিক্ষিত মহল ও ছাত্র সংগঠনের মতামত অগ্রাহ্য করে একটি অপ্রয়োজনীয় ও শিশুদের উপর অনর্থক চাপ সৃষ্টিকারী একটি পরীক্ষা চালু করা হল। যখনই পরীক্ষা চালু করা হয় তখন সরকারের বক্তব্য ছিল এতে মেধার মূল্যায়ন হবে, শিক্ষার্থীদের পরীক্ষাভীতি কমবে, তারা একটা সার্টিফিকেট পাবে। কিন্তু দীর্ঘদিন পর আমাদের অভিজ্ঞতা কী বলে? সকল পাবলিক পরীক্ষার মতো পিইসি-তেও ব্যাপাকভাবে প্রশ্নফাঁস হচ্ছে। একটা অনৈতিক প্রক্রিয়ার সাথে যুক্ত হচ্ছে শিক্ষক-শিক্ষার্থী-অভিভাবক। স্কুল এবং স্কুলের বাইরে চলছে রমরমা কোচিং বাণিজ্য। প্রাথমিক স্তর থেকেই শিক্ষায় ধনী-গরীব বৈষম্য প্রকট হয়ে উঠেছে। এ পরীক্ষার জোয়ারে শিশুদের খেলাধুলা-গান-কবিতাসহ সৃজনশীল সব আয়োজন বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। এর সাথে ত্রুটিপূর্ণ উত্তরপত্র মূল্যায়ন প্রক্রিয়া ও পরিপূর্ণ আয়োজন না করে ইতোমধ্যে চালু হওয়া সৃজনশীল প্রশ্নপত্র শিক্ষার প্রাথমিক স্তরে তৈরিি করছে এক অসহনীয় পরিস্থিতি। এই সামগ্রিক পরিস্থিতিতে মেধার বিকাশ তো দূরের কথা, বরং তৈরি হচ্ছে মানবিকতা-মূল্যবোধ বিবর্জিত যান্ত্রিক, নিষ্প্রাণ প্রজন্ম। এগারো বছরের একটা শিশু যখন জিজ্ঞাসু মন নিয়ে বেড়ে উঠার কথা, লেখাপড়ার প্রতি আগ্রহী হয়ে উঠার কথা, তখনই তাকে নামতে হচ্ছে পিইসি পরীক্ষা নামক প্রতিযোগিতার ইঁদুর দৌড়ে। শেখানো হচ্ছে তোমাকে ‘এ প্লাস’ পেতেই হবে। সামাজিক ও মানবিক গুণ গড়ে ওঠার সময়টুকু হারিয়ে যাচ্ছে কোচিং আর গাইড বইয়ের চাপে।