ক্ষমতার মালিক জনগন–ঐক্যফ্রন্ট

2

মাহাবুবুর রহমানঃ নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে সুষ্ঠ নির্বাচনের দাবিতে বিএনপির নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট জনসভা করেছে রাজধানীর সোহরাওয়ার্ধী উদ্দ্যানে অনুষ্ঠিত হয়েছে আজ। সকাল থেকে বিভিন্ন এলাকা থেকে মিছিল নিয়ে নেতাকর্মীরা জনসভা স্থলে প্রবেশ করে।বেলা বাড়ার সাথে সাথে মাঠ পরিপূর্ণ হয়ে যায়।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফকরুল ইসলাম আমলগীরের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন ঐক্যফ্রন্টের আহবায়ক ড. কালাম হোসেন।

জনসভায় বক্তব্য রাখেন জাসদ সভাপতি আ স ম আব্দুর রব, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বীর উত্তম, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ডাকসুর সাবেক ভিপি সুলতান মোহাম্মদ মুনসুর, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীসহ কেন্দ্রীয়য় নেতৃবৃন্দ।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় ড. কামাল বলেন, আমরা ঐক্যবদ্ধ হয়েছি ঐক্যবদ্ধ থাকব। সুষ্ঠু নির্বাচন হতে হবে। আপনাদের সবাইকে ভোটাধিকারের পাহাড়া দিতে হবে। সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য আপোষহীনভাবে সংগ্রাম চালিয়ে যাওয়ার শপথ নিয়ে যাব। আপনারা ঐক্যবদ্ধভাবে তা বাস্তবায়ন করবেন।

তিনি বলেন, আইন ইচ্ছা করে বদলানো যায় না। আইন আইনই থাকে। বিরোধী দলের জন্যও আইন, সরকারি দলের জন্যও আইন। এটা হয় না, যে সরকারি দল সব আইনের উর্ধ্বে; আর বিরোধী দলের নেতানেত্রীদের যেনতেনভাবে হয়রানি করা হবে, জেলে রাখা হবে। এটা বন্ধ করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, ক্ষমতার মালিক জনগণ। কোনো দলের কর্মী হিসেবে নয় দেশে মালিক হিসেবে আপনাদের দাঁড়াতে হবে। রাস্তা বন্ধ করে জনগণকে নিষ্ক্রিয় করে সমাবেশ বন্ধ করা যাবে না। এটা কোনও ব্যক্তির রাষ্ট্র না। বাধা বিপত্তি মাথা পেতে নেব না। এই দেশে কোনো রাজতন্ত্র মহারানী বা মহারাজা নেই। আমাদের অধিকার আমরা অবশ্যই ফিরিয়ে আনব। জনগণ জেগেছে, এই জাগরণের মাধ্যমে জনগণকে দেশের মালিক করা হবে।

বেগম জিয়ার মুক্তি দাবি করে ড. কামাল বলেন, যে দেশের বিরোধী দলীয় নেত্রীকে যেখানে শ্রদ্ধা জানানো হবে না, সেই দেশে গণতন্ত্র চলতে পারে না।