মূত্র দিয়ে ইট!

16

বিশ্বে প্রথমবারের মতো মানব মূত্র দিয়ে ইট তৈরি করতে সক্ষম হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকার কয়েকজন শিক্ষার্থী। ইউনিভার্সিটি অব কেপ টাউনের ওই শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকৌশল ভবনে বিশেষভাবে তৈরি প্রস্রাবাগারের মাধ্যমে সংগৃহীত মূত্রের সঙ্গে বালি ও ব্যাক্টেরিয়ার সংমিশ্রণ ঘটিয়ে এই ইট তৈরি করেছে জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান।

ইটভাটার পরিবর্তে ঘরের তাপমাত্রাতেই ছাঁচের মাধ্যমে এই বায়ো-ইট তৈরি করা হয়েছে। আর এই ইট তৈরির উপজাত হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে রাসায়নিক সার তৈরির উপাদান নাইট্রোজেন ও পটাসিয়াম।

প্রকল্পটির সুপারভাইজার বিশ্ববিদ্যালয়ের পানির মান প্রকৌশল বিভাগের জ্যেষ্ঠ লেকচারার ড. ডিলন র‌্যান্ডাল বলেছেন,‘এ ক্ষেত্রে আপনারা এমন কিছু নিচ্ছেন যা বর্জ্য হিসেবে বিবেচিত এবং এর থেকে একাধিক পন্য তৈরি হয়। যে কোনো বর্জ্য প্রবাহের ক্ষেত্রে আপনার একই পদ্ধতি ব্যবহার করতে পারেন। এগুলো পুর্নভাবনার বিষয়।’

বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, এর আগে যুক্তরাষ্ট্র মূত্র দিয়ে সিনথেটিক পন্য তৈরির বিষয়ে কাজ করেছিল। তবে ইউনিভার্সিটি অব কেপ টাউনের স্নাতোকোত্তের শ্রেণির শিক্ষার্থী সুজানে ল্যামবার্টই হচ্ছেন প্রথম যিনি মানব মূত্র দিয়ে ইট তৈরি নিয়ে কাজ করেছেন।

ড. ডিলন র‌্যান্ডাল জানিয়েছেন, যেভাবে ঝিনুক গঠিত হয় সেই মাইক্রোবায়াল কার্বনেট বৃষ্টিপাতের মাধ্যমে বায়ো-ইট তৈরি করা হয়। বালির সঙ্গে মূত্র ও যে ব্যাক্টেরিয়ার মাধ্যমে ইউরিজ উৎপাদিত হয় তা মেশাতে হয়। ইউরিজ মূত্রের ইউরিয়াকে ভেঙ্গে দিলে ক্যালসিয়াম কার্বনেট উৎপাদিত হয় যা বালিকে ছাঁচের মধ্যে জমতে সাহায্য করে।

তিনি আরো জানান, যেখানে সাধারণ ইট তৈরিতে ১ হাজার ৪০০ সেন্টিগ্রেড তাপমাত্রার প্রয়োজন এবং বিপুল পরিমাণ কার্বন ডাই অক্সাইড নিঃসরণ হয়, সেখানে বায়ো-ইট তৈরিতে কোনো তাপেরই প্রয়োজন হয় না।

র‌্যান্ডাল বলেন, ক্রেতার যদি সাধারণ ইটের চেয়ে ৪০ শতাংশ বেশি শক্ত ইটের প্রয়োজন হয় তাহলে তাকে বায়ো-ইট জমার জন্য ব্যাক্টেরিয়াকে সময় দিতে হবে।-রাইজিংবিডি.কম