প্রার্থী ঘোষণায় বরিশালে ওয়ার্কার্স পার্টির নেতাকর্মীদের গণপদত্যাগের হুমকি!

125

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বরিশাল-২ আসনে ওয়ার্কার্স পার্টির প্রার্থী ঘোষণা করায় নেতাকর্মীদের চরম ক্ষোভ প্রকাশের পাশাপাশি শতাধিক নেতাকর্মী গণপদত্যাগের প্রস্তুতি নিয়েছেন। শুক্রবার বাংলাদেশ ওয়ার্কাস পার্টির উপজেলা কমিটির এক সভায় উজিরপুরে সদ্য বিএনপি থেকে যোগদানকারী জহিরুল ইসলাম টুটুলকে প্রার্থী ঘোষণা করায় নেতাকর্মীরা ক্ষোভে ফেটে পড়েন।

দলের দীর্ঘদিনের পরীক্ষিত নেতারা এক বিবৃতিতে ওয়ার্কাস পার্টি থেকে গণপদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন। বিক্ষুদ্ধ নেতাকর্মীদের মধ্যে উপজেলা ওয়ার্কাস পার্টির সদস্য ও যুবমৈত্রির সভাপতি দেলোয়ার হোসেন, উপজেলা ওয়ার্কাস পার্টির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও ক্ষেতমজুর নেতা শংকর দাস, ওয়ার্কাস পার্টির সদস্য ও ক্ষেতমজুর নেতা ডা. বিজন হালদার, ওয়ার্কার্স পার্টির প্রাথমিক কমিটির সদস্য ও যুবমৈত্রির নেতা রফিকুল ইসলাম, ওয়ার্কাস পার্টির শাখা সদস্য ও কৃষক সমিতির উপজেলা সাংগঠনিক সম্পাদক সম্রাট মজুমদার, ওয়ার্কাস পার্টির শাখা সদস্য, কৃষক সমিতির নেতা ও ইউপি সদস্য নওয়া বাড়ৈ, সাবেক ছাত্রমৈত্রির নেতা কামাল হোসেন, আঃ কাদের, ছাত্রমৈত্রির জেলা সদস্য মাসুম, যুবমৈত্রির সাবেক ইউনিয়ন সভাপতি খোকন মুন্সি সহ শতাধিক নেতাকর্মী জানান বিএনপি থেকে দলে সদ্য যোগদান কারী টুটুল মুন্সিকে মনোনয়ন দিলে আমরা গণপদত্যাগ করব, অবিলম্বে কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে ত্যাগী নেতাদের মধ্য থেকে মনোয়ন দেওয়ার দাবি জানান।

বানারীপাড়া উপজেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি মন্টুলাল কুন্ডু বলেন, প্রার্থী ঘোষণা তো সাংগঠনিকভাবে হতে হবে। আমাদের পার্টিদতে সাধারণ মতামত না নিয়ে একতরফা প্রার্থী ঘোষণা হতে পারে না। পার্টির একক সিদ্ধান্তের ফলে এখানে চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন নেতাকর্মীরা।

কেন্দ্রীয় ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের সাবেক সমন্বয়কারী ও সাবেক ছাত্রমৈত্রির কেন্দ্রীয় সভাপতি রফিকুল ইসলাম সুজন আমরাই বাংলাদেশকে বলেন, আমি জোটগতভাবে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছি । ওদিকে সদ্য যোগদানকারী জহিরুল ইসলাম টুটুলকে মনোনয়ন দেওয়ার কথা নেতা কর্মীরা আমাকে জানিয়েছেন। তাকে দিয়ে দলের চরম ক্ষতি হবে। তবে দলের স্বার্থে এই সিদ্ধান্তের পরিবর্তন আশা করছি।

উজিরপুর উপজেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সম্পাদক ফাইজুল হক বালী ফারাহিন বলেন, মনোনয়ন অনেকেই চাইতে পারে। দল যাকে মনোনয়ন দিবে আমরা তার নির্বাচন করব, ক্ষোভ তো থাকতেই পারে। উজিরপুরে ১৫ সদস্য বিশিষ্ট নির্বাচন পরিচালনা কমিটি গঠন করেছি।

তবে জানা যায় জহিরুল ইসলাম টুটুল এক সময় বিএনটি জামায়াত জোটের রাজনৈতির সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন। ২ বছর পূর্বে ওটরা ইউনিয়ন যুবমৈত্রির সদস্য পদ গ্রহন করেন বর্তমানে ওয়ার্কার্স পার্টির কোন সভ্য পদ পান নি। ১ বছর পূর্বে ওয়ার্কাস পার্টির ইউনিয়ন কমিটিতে প্রার্থী সভ্যপদ গ্রহণ করেন। বর্তমানে সমাজকল্যান মন্ত্রনালয় থেকে বিভিন্ন তদবির করে জামাতের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে আর্থিক অনুদান দিচ্ছেন বলে এলাকাবাসী জানান।