বঙ্গবন্ধু শ্রমজীবি মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে চেয়েছিলেন

5

মোংলা থেকে মোঃ নূর আলমঃ বঙ্গবন্ধু শ্রমজীবি এবং বাংলা দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফুটিয়ে সোনার বাংলা গড়তে চেয়েছিলেন। বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শ্রমিকবান্ধব বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করেছেন। আওয়ামীলীগ সরকারের আমলে মোংলার শ্রমজীবি মানুষেরু জীবন মানের উন্নয়ন ঘটেছে। বন্দরে কর্মচাঞ্চল্য বৃদ্ধি পেয়েছে। ইপিজেডসহ শিল্প এলাকায় ব্যাপক কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। আগামী জাতীয় নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে ভোট প্রদান করে উন্নয়নের এই ধারা অব্যাহত রাখতে হবে। সোমবার বিকেলে মোংলা বন্দর-শ্রমিক কর্মচারি সংঘ মিলায়তনে জাতীয় শ্রমিকলীগ মোংলা আঞ্চলিক শাখার আয়োজনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদত বার্ষিকী এবং জাতীয় শোক দিবস-২০১৮ উপলক্ষ্যে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় বাগেরহাট-৩ এর সংসদ সদস্য বেগম হাবিবুন নাহার এ কথা বলেন।
সোমবার বিকেলে ৪টায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন জাতীয় শ্রমিকলীগ মোংলা আঞ্চলিক শাখার আহবায়ক শ্রমিক নেতা ওমর ফারুক সেন্টু। সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওলাদার, উপজেলা আ্ওয়ামীলীগের সভাপতি অধ্যক্ষ সুনিল কুমার বিশ্বাস, পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি সেখ আব্দুস সালাম, পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সেখ আব্দুর রহমান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইব্রাহিম হোসেন। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আ্ওয়ামীলীগ নেতা কাজী গোলাম হোসেন বাবলু, উৎপল মন্ডল যুবলীগ নেতা শেখ কামরুজ্জামান জসিম, শামীম হাসান, ছাত্রলীগ নেতা শিকদার ইয়াসিন আরাফাত, কামরুজ্জামান রাসেল, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মোঃ মিজানুর রহমান তালুকদার. লঞ্চ লেবার এ্যাসোসিয়েশন কাশেম মাষ্টার, রিক্সা শ্রমিক ইউনিয়নের মোঃ ইদ্রিস আলী, মাঝিমাল্লা ইউনিয়নের মীর হাসেম, ইমরাত শ্রমিক ইউনিয়নের মোঃ শাজাহান প্রমূখ। আলোচনা সভা শেষে দোয়া-মোনাজাত এবং গণভোজ অনুষ্ঠিত হয়।