দেশের স্বার্থেই সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে আগামী নির্বাচনে নৌকায় ভোট দিতে হবে–পরিকল্পনামন্ত্রী

17

যুগবার্তা ডেস্কঃ দেশের চলমান উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে হলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিকল্প নেই। মাত্র কয়েক বছরে উন্নয়নের মাধ্যমে তিনি পুরো বাংলাদেশের চেহারাই বদলে দিয়েছেন। দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মত যোগ্য নেতৃত্বেই বাংলাদেশে এগিয়ে যেতে চায়। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জঙ্গি দমনে সাফল্য এবং আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ইতিহাসের বিরল ঘটনা। জঙ্গি দমন এবং উন্নয়নের স্বার্থে আবারও শেখ হাসিনাকে ভোট দিয়ে উন্নয়ন এবং ভালোবাসা দিয়ে মানুষের মন জয় করে আগামীতেও শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করবে। বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে একদিকে মহাকাশে বাংলাদেশ স্থান করে নিয়েছে, অপরদিকে দেশের তৃণমূলের মানুষের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে সরকার কাজ করে যাচ্ছে। ফ্রি ফেয়ার ইলেকশন হলে আওয়ামী লীগ জিততে পারবে না এটা যদি কেই ভেবে থাকে তবে সেটা ভূল ধারনা। কেউ নির্বাচনে আসেন বা না আসেন আগামী নির্বাচন ফ্রি ফেয়ারই হবে। নির্বাচনে আওয়ামী লীগই বিজয়ী হবে এবং বরাবরের মতো শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী হয়ে দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখবেন কারন আওয়ামীলীগের সাথে আছে জনগন, আর জনগন বুঝে গেছে দেশকে কিভাবে এগিয়ে নিয়ে যেতে হয়।দেশের উন্নয়নের মাধ্যমে জনগনের চোখ খুলে গিয়েছে তারা এখন আর কোন হানাহানির-প্রতিহিসংসার রাজনীতি দেখতে চায়না, আগুন সন্ত্রাসীদেরকে চায়না, চায়না কোন নির্দিষ্ট ভবন কেন্দ্রীক শোষন-শাসন। জনগন চায় দেশের উন্নয়ন, দেশকে উন্নত দেশে পরিনত করে সারা বিশ্বে মাথা উচু করে দাড়াতে।

আজ শনিবার বিকালে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ ‍উপজেলা পরিষদ মাঠে কর্মী সভায় প্রধান অতিথির ভাষণে মাননীয় পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, এফসিএ, এমপি এসব কথা বলেন।

মাননীয় পরিকল্পনা মন্ত্রী আরো বলেন , জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন ছিল এদেশের মানুষের মুখে হাসি ফুটানো। ক্ষুধা ও দারিদ্র্য মুক্ত দেশ গড়ার জন্যই দেশ স্বাধীন করেছিলেন। জাতির পিতার সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে আমরা মানুষ ও দেশের সেবায় কাজ করে যাচ্ছি। আমরা ব্যবসা করতে আসিনি, আমরা মানুষের সেবা করতে এসেছি। তাই আওয়ামী লীগ যখন ক্ষমতায় আসে, তখন দেশ খাদ্য স্বয়ংসম্পূর্ণ হয় এবং দেশের মানুষ পেট ভরে খেতে পায়। আমরা দেশকে খাদ্য স্বয়ংসম্পূর্ণ করেছি এবং অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও মানুষের আয় বৃদ্ধি করে বাংলাদেশকে বিশ্বের দরবারে মর্যদার আসনে বসাতে সক্ষম হয়েছি। এখন দেশের মানুষ কেউ অনাহারে থাকে না, বিনা চিকিৎসায় মারা যায় না। আমরা খাদ্য, শিক্ষা ও চিকিৎসা ব্যবস্থা মানুষের দোরগোড়ায় এনে পৌঁছে দিয়েছি। বেকার যুবক ও মা-বোনদের জন্য কর্মসংস্থান এর ব্যবস্থা করা হচ্ছে। নারীরা যেন ঘরে বসে কর্মসংস্থান পায়, সেজন্য একটি ঘর একটি খামার প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। ২০২১ সালের মধ্যেই এই দেশকে মধ্যম আয়ের দেশ হিসাবে প্রতিষ্ঠিত করার লক্ষ্য নিয়ে আমরা কাজ করে যাচ্ছি এবং ইতমধ্যে মধ্যম আয়ের দেশের সকল যোগ্যতা অর্জনের স্বীকৃতী পেয়েছি, পুরো জাতি সেটা জাকজমকপূর্ণভাবে উদযাপন করেছে। মানুষ এখন আর কোন ধোকাবাজি দেখতে চায়না, বাঙ্গালী জাতি আজ চায় যাতে গর্বের সাথে বুক ফুলিয়ে জীবনযাপন করতে পারে। আর বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বেই যে সেটা সম্ভব সেটা জাতি অনুধাবন করতে পেরেছে, তাই দেশের স্বার্থেই সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়েই আগামী নির্বাচনে নৌকা ভোট দিতে হবে।

সভাপতি উপজেলা দক্ষিণ আওয়ামীলীগ আব্দুল মালেকের সভাপতিত্বে কর্মী সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি ইলিয়াস হোসেন, সদর দক্ষিণ উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাসুম হামিদ এবং উপজেলা আওয়ামী লীগ, কৃষকলীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, ছাত্রলীগসহ দলীয় সকল সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।