অপশক্তি ক্ষমতায় আসলে আমাদেরকে টয়লেটে যেতেও তাদের অনুমতি নেওয়া লাগবে–পরিকল্পনামন্ত্রী

6

যুগবার্তা ডেস্কঃ সামনে নির্বাচন এবং এ নির্বাচনে জনগনকে খুবই সচেতন হতে হবে কেননা জনগনকেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে দেশকে কি তারা সামনের দিকে নিয়ে উন্নত দেশে পরিনত করবে নাকি কোন অপশক্তির হাতে তুলে দিয়ে পিছিয়ে দিবে। আমরা ১৯৯৬ সালে যাত্রা শুরু করি, ২১ বছর পর বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় আসে আমরা অনেক নতুনত্ব নিয়ে কাজ শুরু করেছিলাম যেগুলোতে জনগন অনেক বেশী উপকৃত হতে পারত। সেগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো স্বাস্থ্যখাতে কমিউনিটি ক্লিনিক, একটি বাড়ী একটি খামার কিন্তু পরবর্তীতে ক্ষমতার পরিবর্তন হলে জনগন এগুলো থেকে সঠিকভাবে উপকৃত হতে পারেনি কারন এগুলো বন্ধ করে দেওয়া হয়।আরেকটি উদ্যোগ ছিল সাইবার অপটিক্যাল সেটিও হতে দেওয়া হয়নি, বলা হয়েছিল এটি হলে নাকি দেশের সব তথ্য পাচার হয়ে যাবে, দেশই নাকি বিদেশীদের হাতে চলে যাবে- এভাবে দেশকে পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে ধাপে ধাপে। জনকল্যানমূলক আমাদের উদ্যোগগুলোকে বন্ধ করে দিয়ে দেশকে তারা পিছিয়ে ‍দিয়েছে বহু বছর।২০০৮ সালে আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় এসে জনগনের সেবার সুযোগ লাভ করে এবং ধারাবাহিকতা থাকার কারনে সেইসকল জনকল্যানমূলক উদ্যোগগুলো আবার ফিরিয়ে নিয়ে এসে আমরা প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছি এগুলো জনগনের জন্য অতীব প্রয়োজন। সামনে নির্বাচন, আমরা শুধু এটুকু দাবী করব আজকে আমরা যে মহা কর্মযজ্ঞ পরিচালনা করে যাচ্ছি এগুলো অব্যাহত রাখতে হলে আমাদেরকে আরেকবার সুযোগ দিতে হবে।

আজ শুক্রবার বিকালে কুমিল্লার লালমাই ‍উপজেলার বাগমারা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে বাগমারা ইউনিয়নের কর্মী সভায় প্রধান অতিথির ভাষণে মাননীয় পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, এফসিএ, এমপি এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, অপশক্তি এখনই জঘন্য যত চক্রান্ত শুরু করেছে এবং বলাবলি করতে শুরু করেছে যদি কোনভাবে তারা এবার ক্ষমতায় আসতে পারে আমাদেরকে টয়লেটে যেতে হলেও তাদের অনুমতি নেওয়া লাগবে, তাদেরকে ট্যাক্স দিয়ে যেতে হবে।আমরা মনেকরি যে আজকে এদেশের জনমানুষের কল্যানের জন্য, এদেশকে উন্নত দেশের কাতারে পৌছে দেওয়ার জন্য বর্তমান সরকারের ধারাবাহিকতা থাকতে হবে। এ ধারাবাহিকতা রক্ষা হলে বঙ্গবন্ধুর প্রতিশ্রুত সোনারবাংলা তৈরী করতে পারব, অপশক্তিকে প্রতিহত করে ৩০ লক্ষ শহীদের স্বপ্নের বাস্তবায়ন করতে পারব।

কুমিল্লা দিক্ষিণ জেলা আওয়ামীলীগ সদস্য আব্দুল হামিদ বি এ এর সভাপতিত্বে কর্মী সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন লালমাই উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল হামিদ বিকম, ভাইস চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মজুমদার, বাগমারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কাসেম ও উপজেলা আওয়ামী লীগ, কৃষকলীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, ছাত্রলীগসহ দলীয় সকল সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।