ধর্মঘট নয়, নিরাপত্তার অভাবে বাস চলাচল বন্ধ–নৌমন্ত্রী

4

যুগবার্তা ডেস্কঃ কেউ কোনো ধর্মঘট ডাকেনি। নিরাপত্তার অভাব বোধ করে বাস মালিক-শ্রমিকেরা গাড়ি চালানো বন্ধ রেখেছেন বলে দাবি করেছেন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের কার্যকরী সভাপতি ও নৌমন্ত্রী শাজাহান খান।

শুক্রবার রাজধানীর মহাখালী বাস টার্মিনাল মসজিদে নিহত কলেজ ছাত্রী দিয়া খানমের জন্য দোয়া মাহফিলে যোগ দিতে এসে নৌ পরিবহনমন্ত্রী এসব কথা বলেন। এ সময় তাঁর সঙ্গে দিয়ার বাবা জাহাঙ্গীর আলমও ছিলেন। জাহাঙ্গীর বাস চালক। এর আগে মহাখালী বাস টার্মিনালের দোতলায় সংবাদ সম্মেলন করে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের মহাসচিব খন্দকার এনায়েতউল্লাহ বলেন, শ্রমিকেরা নিরাপদ বোধ করলেই গাড়ি চলবে।

তবে মহাখালীতেই এই প্রতিবেদকের কথা হয় অন্তত তিনজন বাসচালকের সঙ্গে। যাঁরা বলছেন, কেন্দ্রীয় কমিটির সিদ্ধান্তেই তাঁরা বাস চলাচল বন্ধ রেখেছেন। বাস টার্মিনালের দোতলায় যখন খন্দকার এনায়েতুল্লাহর সংবাদ সম্মেলন চলছিল, তখন বারান্দায় বাস চলাচল বিষয়ক সিদ্ধান্ত জানতে ঘোরাঘুরি করছিলেন বেশ কয়েকজন বাস চালক ও শ্রমিক। তাঁদের দু’জন জানান, তাঁরা কিশোরগঞ্জ রুটের অনন্যা পরিবহনে কাজ করেন। বাস চালানো যাবে কিনা সে সিদ্ধান্ত জানতেই তাঁরা এখানে এসেছেন। কেন্দ্রীয় নেতাদের সিদ্ধান্তেই বাস চলাচল বন্ধ বলে তাঁরা জানান।

রাস্তায় আন্দোলনকারীরা নেই, তবুও গণপরিবহন চলছে না কেন—জানতে চাইলে শ্রমিক নেতা শাজাহান খান বলেন, ‘এটা কোনো ধর্মঘট নয়। নিরাপত্তার অভাবে গাড়ি বন্ধ রাখা হয়েছে। আপনার নিজের গাড়ি হলেও তো আপনি এ পরিস্থিতিতে বের করতেন না। ড্রাইভারদেরও অনেক জায়গায় মারপিট করছে। সে কারণেই মনে হয় মালিক ও শ্রমিকেরা গাড়ি বন্ধ রেখেছে।’ তিনি বলেন, ‘তবে আজ (শুক্রবার) যে পরিস্থিতিতে এ রকম থাকলে আশা করি শনিবার থেকে গাড়ি চালাবেন মালিক শ্রমিকেরা। আর নাইট কোচ তো চলছেই।’