ওয়াশিংটনে বর্নাঢ্য অায়োজনে ডিসি বই মেলা অনুষ্ঠিত

22

যুগবার্তা ডেস্ক:

“বিশ্বজুড়ে বাংলা বই” প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে যুক্তরাষ্ট্রের বৃহত্তর ওয়াশিংটনে ডিসিতে বসাবসকারী প্রগতিশীল বাঙালীদের সংগঠন ‘‘আমরা বাঙালি ফাউন্ডেশন’’ আয়োজিত প্রথমবারের মত ‘‘ডিসি বই মেলা-২০১৮’’ জাকজমকপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে। মেলায় সাহিত্যে অবদানের জন্য ২ জনকে পুরস্কার প্রদানও করা হয়।পাশাপাশি আগামী বছর ২৯ জুন ডিসি বই মেলা ২০১৯ এর তারিখ ঘোষণা করা হয়।

Image may contain: 12 people, people smiling, people standing and outdoor

 

স্থানীয় সময় শনিবার সকালে ওয়াশিটন ডিসির ভার্জিনিয়ার নোভা এনানডেল ক্যাম্পাসে দিন ব্যাপী এ মেলা আয়োজিত হয়।

ওদিন সকাল ১১ টায় স্থানীয় প্রতিষ্ঠান বর্ণমালা শিক্ষাঙ্গণের নেতৃত্বে এক বর্নাঢ্য শুভাযাত্রায় মেলার মুল অঙ্গনের দিকে যাত্রা শুরু করে। শোভাযাত্রাটির মুল আকর্ষণ ছিল স্থানীয় অনেক শিশুকিশোরদের অংশগ্রহণ ও গ্রাম বাংলার ঐতিহ্য প্রদর্শন। শোভাযাত্রাটি নোভা কলেজের আর্নেস্ট কালচারাল সেন্টারের সামনের পথ বেয়ে গিয়ে শেষ হয় বইমেলার মুল প্রাঙ্গণে।

প্রধান অতিথি হিসেবে মঙ্গল শোভাযাত্রায় নেতৃত্ব দেন বাংলা একাডেমীর মহাপরিচালক অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান।

Image may contain: 8 people, people standing

এছাড়াও মঙ্গল শোভাযাত্রায় ভয়েস অফ আমেরিকার বাংলা বিভাগের প্রধান ও ‘‘আমরা বাঙালি ফাউন্ডেশন’’এর প্রধান উপদেষ্টা রোকেয়া হায়দার, বাংলাদেশ দূতাবাসের উপপ্রধান কবি মাহবুব হাসান সালেহ, কবি সাইদ আল ফারুক, মজহারুল হক, পারভিন পাটোয়ারী, ড. নজরুল ইসলাম, ড. খন্দকার মনসুর, মুক্তিযোদ্ধা মনসুর আহমেদ, এডঃ অমর ইসলাম, ‘‘আমরা বাঙালি ফাউন্ডেশন’’ এর সভাপতি জীবক কুমার বড়ুয়া, ‘ডিসি বইমেলা ২০১৮’ এর প্রধান সমন্বয়ক স্থপতি আনোয়ার ইকবাল কচি, আমরা বাঙালি ফাউন্ডেশনের সকল পরিচালকবৃন্দ, বইমেলা কমিটির উপদেষ্টামণ্ডলী, সমন্বয় কমিটির সকল সমন্বয়ক, বাংলা স্কুল, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এলমনাইসহ লেখক কবি সাহিত্যিক ও স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীরা।

এরপর ফিতা কেটে এই ঐতিহাসিক বইমেলার আনুষ্ঠানিক শুভ উদ্বোধন করেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান। জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশক সমিতির সভাপতি সময় প্রকাশনীর ফরিদ আহমেদ ও নির্বাহী পরিচালক অনন্যা প্রকাশনীর মো. মনিরুল হককে সঙ্গে নিয়ে মেলায় মেলার মুল প্রাঙ্গণে সকল বইয়ের স্টল ঘুড়ে ঘুড়ে দেখেন তিনি।

Image may contain: one or more people

অনুষ্ঠানের সমাপনি বক্তব্য রাখেন আমরা বাঙালি ফাউন্ডেশনের সভাপতি জীবক কুমার বড়ুয়া। সমাপনি বক্তব্যে তিনি সবাইকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে আগামী বইমেলা ২০১৯ এর সম্ভাব্য তারিখ ঘোষণা করেন ২৯ জুন ২০১৯। ডিসি বইমেলা ২০১৮ এর অফিশিয়াল পার্টনার ছিল বিসিসিডিআই বাংলা স্কুল ও বর্ণমালা শিক্ষাঙ্গন।

Image may contain: 9 people, people smiling, people on stage and people standing

মেলা উপলক্ষে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় অধ্যাপক শামসুজ্জামান খানকে সম্মানসূচক মানপত্র তুলে দেবার পাশাপাশি উত্তরীয় পড়িয়ে দেন সংগঠনটির সভাপতি জীবক বড়ুয়া।

বইমেলার শুরুতেই বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বাণী পাঠ করেন “আমরা বাঙালি ফাউন্ডেশনের” সাধারণ সম্পাদক দস্তগীর জাহাঙ্গীর। সাংস্কৃতিক বিষয়ক ম মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূরের বাণী পাঠ করেন ‘‘আমরা বাঙালি ফাউন্ডেশন’’ এর পরিচালক দেওয়ান আরশাদ আলী বিজয়।

বইমেলায় সারা দিনের আয়োজনে সকাল থেকে স্থানীয়, বিভিন্ন অঙ্গরাজ্য, কানাডা, যুক্ত্ররাজ্য , ভারত ও বাংলাদেশ থেকে কবি সাহিত্যিক ছড়াকার, শিল্পী, বাচিক শিল্পী, নৃত্যশিল্পীসহ সাধারণ মানুষের ব্যাপক উপস্থিতিতে যেন এক টুকরা বাংলাদেশ বা বাংলা একাডেমী প্রাঙ্গণে অমরগ্রন্থ মেলার আবহ সৃষ্টি হয়।

মেলার মুল মঞ্চে বাচ্চাদের বিভিন্ন অনুষ্ঠানসহ কবি ও সাহিত্যিকদের পরিচিতি, গান গল্প ইত্যাদি বহু প্রকারের পরিবেশনায় ঢাকার বইমেলার মত আমেজপুর্ণ আয়োজন ছিল পুরাটা সময় জুড়ে।

Image may contain: 8 people, people smiling, people sitting and indoor

মেলায় ২০টি স্টলের মধ্যে প্রিয়মুখ প্রকাশনী, সুচীপত্র, আদর্শ, ভুত প্রকাশন, শব্দভুমি, ইতি প্রকাশন, জয়িতা, পুঁথিনিলয়ের মত দশটি দেশি বিদেশী প্রকাশনা অংশ গ্রহণ করেন।

মেলায় ‘ওয়াশিংটন সংবাদ ডটকম’ নামের একটি নিউজ পোর্টালের শুভ উদ্ধোধন করেন ‘ডিসি বই মেলা’র প্রধান অতিথি বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক অধ্যাপক ড শামসুজ্জামান খান। আমরা বাঙালী ফাউন্ডেশনের পরিচালক দেওয়ান আরশাদ আলী বিজয় এ অনলাইন নিউজ পোর্টালটির সম্পাদক ও কর্ণধার। পাশাপাশি ডিসি বইমেলায় ‘দীপালিকা’ নামের একটিস স্মরণিকা প্রকাশ করা হয়।

Image may contain: 9 people, including Jibak Barua, Dewan Arshad Ali Bejoy and Ratan Nir, people smiling, people standing and indoor

মেলায় প্রদর্শনী জন্য বাংলাদেশ থেকে প্রায় ১৬00 বই আনা হয় । নতুন বইয়ের এই মহা ভাণ্ডার বই প্রেমিদের কাছে ছিল অনেক বড় পাওয়া। বইয়ের দোকানে দেখা গেছে উপচে পরা ভিড়।

Image may contain: 5 people, people sitting and indoor

মেলায় আমরা বাঙালি ফাউন্ডেশনের পরিচালক মেজর ফজলুর চৌধুরীর পরিচালনায় মোঘল আমল থেকে সমসাময়িক সময়ের সকল প্রকারের মুদ্রা কাগজের টাকার নোট ও কয়েন নিয়ে এই বিশেষ প্রদর্শনীও হয়। বাংলাদেশের কাগজের টাকার নোট ও কয়নের প্রদর্শনী ছিল।

Image may contain: 9 people, people smiling, people standing

মেলায় অনেক বই বিক্রি হয়েছে বলে জানান আমরা বাঙালি ফাউন্ডেশন বই স্টলের সমন্বয়ক অনামিত্রা বড়ুয়া ও আদৃতা ক্যথেরীন জাহাঙ্গীর, রতন নির ছিলেন বইয়ের স্টলের সার্বিক সহযোগিতায়। এই টিমে আরো ছিলেন সুহা খন্দকার, এনাডেল, সামারা এলাহী, অর্নব বড়ুয়া, ধ্রুব বড়ুয়া, মানাল আমীন, নুহা আমীন, হৃত্তবাস চৌধুরী, উচ্ছাস চৌধুরী, সুদীপ ,সুমিত , রুহিত, লাবিবা ইশ্রাত রহমান, মাহদি রহমান, এরিনা এলাহী, তাহিয়াত আমান ফিয়াজা ও সিথিয়া রেশ্মী।

Image may contain: 11 people, people smiling, people sitting

এই বই মেলায় অনেক নবীন ও প্রবীণদের দেখা গেছে সাড়াদিন বই কিনে ও অনুষ্ঠান দেখে সময় কাটাতে। অনেকেই বই কিনে হাত ভর্তি বই নিয়ে ছবি তুলে সামাজিক মাধ্যমে হাস্যজ্জল ছবি পোষ্ট করেছেন। এ ছিল যেন বই আনন্দ মেলা!

Image may contain: 4 people, people smiling, people sitting

দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের পরিকল্পনায় ছিলেন আনোয়ার ইকবাল কচি, সামিনা আমীন ও আতিয়া মাহজাবীন নিতু ও সমন্বয়ক শিল্পী খান ছিলেন সার্বিক সহব্যবস্থাপনায়। অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন আতিয়া মাহজাবিন নিতু ও সামিনা আমীন। গান পরিবেশন করেন দিনার মনি, ডরথী বোস, সাইয়েদা সুলতানা রুনা ও নাহিদ নাজিয়া।

ইসরাত সুলতানা মিতার পরিচালনায় ছিল ছোটদের মনমাতানো ভাল লাগার অনুষ্ঠান ছানাপোনার গল্প, অদিতি সাদিয়া রহমানরের পরিচালনায় সুকুমার রায়ের হযবরল, শিমুল মৌয়ের পরিচালনায় বাংলা স্কুলের পক্ষথেকে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, গীতি আলেক্ষ্য নায়িকা সংবাদ, গানের ছোঁয়ায় কবিতা, একতারার পরিবেশনা সুরের কবিয়াল যার পরিচালনায় ছিলেন শেখ মাওলা মিলন, ধারবাহিক গল্প বলার আসর, লেখক কুঞ্জে কবি লেখকদের সাথে আড্ডা ও কথোপকথন।

আরো ছিল কিশোরেদের নিজস্ব অঙ্কন চিত্রের প্রদর্শনী। বইমেলা প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হয় স্থির চিত্রের প্রদর্শনী। তাতে সাইদ এম রহমান, রায়হান এলাহী ও তাপস বড়ুয়া ক্যামেরায় ধারণকৃত কিছু দুর্লভ ছবি প্রদর্শিত হয়।

Image may contain: 1 person

ইতিহাস সৃষ্টির মাহেন্দ্রক্ষণের এই বইমেলার স্বেচ্ছাসেবী ছিলেন নতুন প্রজন্মের আমেরিকান বাঙালি। প্রায় বিশজন কিশোর কিশোরীর সমন্নয়ে গড়ে তুলা হয়েছিল আমরা বাঙ্গালি ফাউন্ডেশন ইয়ুথ ভলন্টিয়ারস টিম

বইমেলার এই বিশাল মঞ্চ তৈরির কাজ সুনিপুণ শেষ করার ভার নিয়েছিলেন প্রধান সমন্বয়ক আনোয়ার ইকবাল কচি, বাংলা স্কুলের প্রাক্তন সভাপতি শামিম চৌধুরী, পারভেজ আলম চৌধুরী মোহাম্মদ হারুন, আমরা বাঙালি ফাউন্ডেশনের পরিচালক আমান উল্লাহ আমান, মোঃআলতাফ হোসেন ও মুস্তাফিজুর রহমান ।

মঞ্চ নিয়ন্ত্রণ ও সার্বিক লজিস্টিক সহযোগিতায় ছিলেন মিসেস শেফালি, ডঃ মিজান রহমান, ডঃ কাইয়ুম খান, কাজি জামান মিতু।

ডিসি বইমেলার সকল প্রকা্র তথ্য ও রেজিস্ট্রেশানের দায়িত্ব পালন করেছেন তারেক মেহদী। ওয়েব সাইট তৈরী ও প্রকাশনা দায়ীত্ব পালন করেছেন তৌফিক হাসান।

সাহিত্যে অবদানের জন্য পুরস্কার প্রদান: মেলায় বাংলা সাহিত্যে বিশেষ অবদানের জন্য এবারের সাহিত্য পুরস্কার পেয়েছেন দিলারা হাশেম। ১৯৭৬ সালে বাংলা একাডেমি পুরস্কারে ভুষিত লেখিকার প্রায় ২২টি গ্রন্থ এ পর্যন্ত প্রকাশিত হয়েছে।বহু গুনে গুনান্বিতা এই সাহিত্যিক একাধারে একজন বাচিক শিল্পী,একজন কন্ঠ শিল্পীএবং স্বনামধন্য সাংবাদিক। তিনি দীর্ঘদিন ভয়েজ অব আমেরিকায় বাংলা বিভাগে কাজ করেন ।

সাহিত্যে বিশেষ পুরস্কার পেয়েছেন বিশিস্ট সাহিত্যিক নুরজাহান বোস। ২০১৬ সালে বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার পাওয়া লেখিকা নারীর ক্ষমতায়নের জন্য আশা এবং সংহতি নামক দুটি অলাভজনক সংস্থা প্রতিষ্ঠা করেন।