ডিসেম্বরের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সোনালি ফসল ঘরে তুলবে–কাদের

4

যুগবার্তা ডেস্কঃ ওবায়দুল কাদের বলেছেন, চলতি বছরের ডিসেম্বরে যে নির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে তা ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের জন্য অনেকটা চ্যালেঞ্জিং হবে। তবে দল ঐক্যবদ্ধ থাকলে সেই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সোনালি ফসল ঘরে তুলবে।

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে সোমবার বিকেলে রাজধানীর ইস্কানট লেডিস ক্লাবে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ দক্ষিণের আয়োজিত আলোচনা ও ইফতার অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবসের পটভূমি তুলে ধরে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সব কথা বলতে চাই না। নেতাদের অনেকেই যে সাহসটা দেখাতে পারেননি সেই সাহস দেখিয়েছেন আওয়ামী লীগের কর্মীরা। আর এই কর্মীরাই ২০০৮ সালের নির্বাচনে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দলের বিজয়কে সুনিশ্চিত করেছেন।’

আওয়ামী লীগ এখনও কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে মন্তব্য করে মহানগর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে কাদের বলেন, ‘সময় একটু বেশি নিলেও আপনারা কমিটি জমা দিয়েছেন। নেত্রী দেশে ফিরে এলে তার সঙ্গে আলোচনা করে খুব শিগগির এই কমিটিগুলো ঘোষণা করা হবে। কমিটি নিয়ে বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় দেখি এখনও কমিটি হয়নি। কিন্তু কমিটি আমাদের পার্টির অফিসে জমা হয়েছে। আমরা খুব শিগগির আমাদের সভাপতির সঙ্গে আলোচনা করে এই কমিটিগুলো প্রকাশ করবো। ছোট-খাট কিছু ভুল-ক্রটি থাকলে নেত্রীর পরামর্শ অনুযায়ী সেগুলো আমরা সংশোধন করে নেবো।’

‘আজকে আওয়ামী লীগকে যেকোনো মূল্যে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের ইঞ্জিন। এই ইঞ্জিনকে সচল রাখতে হবে। যেজন্য আমাদের কর্মীদের সচল ও সংগঠিত থাকতে হবে। কোনো অবস্থাতেই কোনো কলহ-কোন্দলকে প্রশ্রয় দেবেন না।’

কাদের বলেন, ‘আগামী নির্বাচন চ্যালেঞ্জিং নির্বাচন। কিন্তু আমাদের বিশ্বাস আমরা ঐক্যবদ্ধ থাকলে বাংলাদেশের কোনো রাজনৈতিক শক্তি আওয়ামী লীগকে পরাজিত করার সামর্থ্য নেই।’

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের জনগণ ঐক্যবদ্ধ দাবি করে তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ থাকলে আমরা এই ঐক্যের সোনালি ফসল বিজয়ের মাস ডিসেম্বরে ঘরে তুলবো ইনশাআল্লাহ।’

দলের নেতাদের যেকোনো বিষয়ে ফ্রি-স্টাইলে কথা না বলার আহ্বান জানিয়ে সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘নির্বাচন কৌশলগত বিষয়। আমাদের জোটের রাজনীতিরও কৌশল আছে। কাজেই নেতাদের প্রতি অনুরোধ, সব বিষয়ে ফ্রি-স্টাইল কথা বলবেন না। দলের নীতি-কৌশল, জোট গঠন এসব নিয়ে ফ্রি-স্টাইল কথা বলা দলের জন্য শুভ নয়। আমাদের এক ভয়েস, এক টোনে কথা বলতে হবে। সব বিষয়ে সবার কথা বলার প্রয়োজন নেই। যারা যে বিষয়ে কথা বলার, সেই পর্যন্ত বলবেন।’