একটি ছবিতেই বন্দি জি৭ সম্মেলনের পরিণতি!

2

মোহাম্মদ আলী বোখারী টরন্টো থেকে: এবারের জি৭ শীর্ষ সম্মেলনটি হয়েছে কানাডার ক্যুইবেক প্রদেশের চার্লভয় অবকাশ কেন্দ্রে। যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, ব্রিটেন, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি ও জাপানকে নিয়ে গঠিত সেই জোট। এতে শতাধিক তো বটেই, সম্ভবত হাজারধিক ছবি তোলা হয়েছে। কিন্তু একটি ছবিই ওই সম্মেলনের তাবৎ পরিণতিটি বলে দিচ্ছে। সেটি জার্মান চ্যান্সেলর

অ্যাঙ্গেলা মার্কেলের ইন্সটাগ্রা ‘বুনডেসকাঞ্জলেরিন’ থেকেই বিশ্বের সর্বত্র ছড়িয়ে পড়েছে। সেখানে কী ঘটছে, এক অর্থে সহজবোধ্য।

তবু ওই ছবির ব্যাখ্যায় যাওয়ার আগে বলা দরকার যে, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সম্মেলনটি অপরাপর নেতার আগেই শনিবার ত্যাগ করেছেন। কারণ তাকে তারই এক সময়ের বলা ‘লিটল রকেট ম্যান’ উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং উনের সঙ্গে সাক্ষাতের উদ্দেশ্যে চলে যেতে হয়েছে। সেক্ষেত্রে রওয়ানার আগে নিজে একটি সংবাদ সম্মেলন করেছেন। তাতে কানাডা, জাপান ও ইউরোপীয় বন্ধু রাষ্ট্রের সঙ্গে শুল্ক আরোপগত বাণিজ্য সম্পর্কের টানাপড়েনটি জনসমক্ষে প্রকাশ পেয়েছে, যা আগের দিন ওই সরকার প্রধানদের সঙ্গে বৈঠকে জানিয়েছেন। এরপর ট্রাম্প তার সরকারি বিমান ‘এয়ার ফোর্স ওয়ান’-এ স্বাগতিক কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর সংবাদ সম্মেলনটি টেলিভিশনে দেখেন। প্রতিক্রিয়ায় ট্রাম্প তিনটি টুইট করেন। যার দুটি বেশ সমালোচিত হয়েছে। যেমনÑ ‘পিএম জাস্টিন ট্রুডো অব কানাডা অ্যাক্টেড সো মিক অ্যান্ড মাইল্ড ডিউরিং আওয়ার এট জি৭ মিটিংস’। অর্থাৎ কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো আমাদের জি৭ বৈঠকে অপ্রতিবাদী ও বিন¤্র ছিলেন। “অনলি টু গিভ এ নিউজ কনফারেন্স আফটার আই লেফ্ট সেইং দ্যাট, ‘ইউএস ট্যারিফস ওয়্যার কাইন্ড অব ইনসাল্টিং’ অ্যান্ড হি ‘উইল নট বি পুশড্ অ্যারাউন্ড।’ ভেরি ডিসঅনেস্ট অ্যান্ড উইক। আওয়ার ট্যারিফস আর ইন রিসপন্স টু হিজ অব ২৭০% অন ডেইরি!” অর্থাৎ আমি চলে যাওয়ার পর সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলা ‘যুক্তরাষ্ট্রের শুল্ক এক ধরনের অপমান’ এবং তাকে ‘অপদস্ত করা যাবে না’ বাস্তবিকই অসততা ও দুর্বলতার পরিচায়ক। আমাদের শুল্ক আরোপ দুগ্ধজাত পণ্যের উপর তার আরোপিত ২৭০ শতাংশের সমান।

আর ওই ছবিটিতে দেখা যাচ্ছে, জার্মাান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মার্কেল একটি টেবিলে দুই হাত দৃঢ়তায় ভর করে কিছু জানায় তাকিয়ে আছেন ডোনাল্ড ট্রাম্পের দিকে। কিন্তু ট্রাম্প বিস্ময়ভরা দৃষ্টিতে দেখছেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইম্মানুয়েল ম্যাক্রনকে। টেবিলে ছড়িয়ে আছে বিক্ষিপ্ত কিছু কাগজ! প্রশ্ন হচ্ছে, সেখানে ডোনাল্ড ট্রাম্প কি রাগান্বিত? অবসাদগ্রস্ত? নাকি পুলকিত? উত্তর যাই হোক না কেন, নিঃসন্দেহে বলা যায়, এই ছবিটিই জি৭ সম্মেলনের পরিণতিটি উন্মোচন করেছে।-আমাদের সময়.কম