কুমিল্লা ব্রাক্ষ্মনবাড়ীয়া সিলেট সড়কটি দ্রুত গতিতে পূনর্গঠন করা হবে- পরিকল্পনা মন্ত্রী

13

সংবাদদাতাঃ কুমিল্লা থেকে ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়া হয়ে সিলেট সড়কটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ন একটি সড়ক। বলা চলে এটি এই দুই অঞ্চলের মানুষের সেতু বন্ধন। কিন্তু দীর্ঘদিন যাবৎ এই সড়কটির বেহল দশা, ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে আছে। যার কারনে মানুষদের অপরিসীম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। কুমিল্লা সিলেট মহাসড়কের সরাইল উপজেলার বিশ্বরোড মোড় থেকে সদর উপজেলার উজানিসার পর্যন্ত প্রায় ২০ কিলোমিটার মহাসড়ক এখন খানাখন্দে ভরপুর। এই বেহাল মহাসড়ক দিয়ে অভ্যন্তরীণ ও দূরপাল্লার গাড়িগুলো ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করে। এতে করে যানবাহনের যাত্রীরা খুবই কষ্ট করছে। প্রতিদিন এই মহাসড়ক দিয়ে ১৫টি জেলার ছোট বড় মিলিয়ে প্রায় ১৮ হাজার যানবাহন চলাচল করে। তা ছাড়া প্রতিনিয়ত এই সড়ক দিয়ে যাত্রীবাহী ও পণ্যবাহী গাড়ি চলাচল করে। বৃষ্টির জন্য সড়কটির আরো বেশী নাজুক অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। মাননীয় পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এফসিএ এমপি বলেছেন এ ধরনের জনদূর্ভোগ কোন ভাবেই কাম্য নয়, তাই অতি দ্রুতই এই মহাসড়কের পুনর্গঠন করা হবে।

আজ রবিবার মাননীয় পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এফসিএ, এমপি সদর দক্ষিণ উপজেলার বিজয়পুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠন আয়োজিত আলোচনাসভা ও ইফতার মাহফিলে অংশগ্রহন করে এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী আরো বলেন, কুমিল্লা সিলেট সড়কটির অত্যন্ত অর্থনৈতিক গুরুত্ব রয়েছে। পাশাপশি ১৫টি জেলার যোগাযোগে এই সড়কটির গুরুত্ব অপরিসীম। এই সড়কটির দ্রুত পুনর্গঠনের জন্য প্রয়েীজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য জরুরী ভিত্তিতে তাগিদ দেওয়া হয়েছে।

বিজয়পুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠন আয়োজিত আলোচনাসভা ও ইফতার মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন বিজয়পুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি সুলতান আহমেদ। অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন সদর দক্ষিণ উপজেলা চেয়ারম্যান গোলাম সারোয়ার ও ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল হাই; নবগঠিত লালমাই উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক বি.কম ও ভাইস চেয়ারম্যান মিজান মজুমদার; কুমিল্লা সদর দক্ষিণ জেলা আওয়ামীলীগ সহ-সভাপতি সাহাদৎ হোসেন তসলীম, নাঙ্গলকোট পৌরসভা মেয়র আব্দুল মালেক এবং বিজপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান খোকা।