বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ তিন কোটি টাকার অনুদানের চেক হস্তান্তর

19

মফিজুর রহমান কবির: সৌদি আরবের রিয়াদে বাংলাদেশি কমিউনিটির বিভিন্ন স্কুলের উন্নয়নে চলমান আর্থিক সঙ্কট মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রবাসীকল্যাণ তহবিল থেকে ১০ কোটি টাকা বিতরণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় রিয়াদ বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ (বাংলাদেশ কারিকুলাম) আয়োজিত ১৪ মে, প্রধানমন্ত্রীর ওয়েজ আর্নার্স বোর্ড এর তহবিলের তিন কোটি টাকার চেক হস্তান্তর করেন রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ।এসময় রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার প্রবাসী বান্ধব সরকার। তাই প্রবাসীদের সন্তানদের পড়াশোনা নির্বিঘ্ন করার লক্ষ্যে ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ড থেকে এই অর্থ বরাদ্দ দিয়েছেন।অনুদানের এই অর্থ স্কুল কর্তৃপক্ষকে স্কুলের উন্নয়নে সঠিকভাবে খরচ করার জন্য নির্দেশ দেন।তিনি স্কুলের শিক্ষার্থীদের খেলাধুলা এবং ছাত্রীদের ন্যূনতম কারিগরি অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য তাঁর ব্যক্তিগত থাত থেকে অতিরিক্ত অর্থ অনুদান দেওয়ারও প্রতিশ্রুতি দেন।তিনি স্কুলের শিক্ষকদের ব্যক্তিগত টিউশনী না করার পরামর্শ দেন।প্রাইভেট টিউশনী আইনসিদ্ধ নয় বলে তিনি যানান।তিনি স্কুলের ব্যবস্থাপনা পর্ষদ ও শিক্ষকদের,অতিরিক্ত শিক্ষাক্রম চালু করার পরামর্শ দেন এবং ছাত্র ছাত্রীদের অধিক পাঠদানের মধ্য দিয়ে ,দেশের মুক্তিযুদ্ধ, ইতিহাস, ঐতিহ্য ,ও দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ করার জন্য শিক্ষকদের প্রতি আহবান জানান।রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ,অনুদানের অর্থখরচে স্বচ্ছতা বজায় রাখার জন্য বলেন।
রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বের প্রশংসা করে তিনি বলেন,বাংলাদেশ ২০২১ সালের মধ্যে, মধ্যম আয়ের দেশ এবং ২০৪১-এ একটি উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হবে। বাংলাদেশ আজ মহাকাশে স্যাটেলাইট পাঠাতে সক্ষম হয়েছে।
অনুষ্ঠানের সভাপতি পর্ষদ চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমেদ বলেন, ৩৫ বছরের ইতিহাসে এই স্কুলে তিন কোটি টাকার অনুদান এটাই প্রথম। প্রতিষ্ঠানটি টিকিয়ে রাখার জন্য তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও রাষ্ট্রদূতসহ সকল কর্মকর্তার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।অনুদান ছাড়া স্কুলটি চালানো সম্ভব হতো না প্রতিষ্ঠানের জন্য এটি একটি টার্নিং পয়েন্ট।
উল্লেখ্য,১১ মে আল-কাসিম প্রদেশের বুরাইদায় বাংলাদেশ ইন্টারন্যশনাল স্কুলটিকে প্রধানমন্ত্রীর অনুদানের ৭৭ লক্ষ টাকার চেক হস্তান্তর করেন রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ। এ সময় দূতাবাসের কর্মকর্তা, পরিচালনা পর্ষদ, ছাত্রছাত্রী, অভিভাবক, শিক্ষকবৃন্দ এবং কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ইকনমিক কাউন্সেলর ড.আবুল হাসান, শ্রমকাউন্সেলর সারোয়ার আলম, অধ্যক্ষ বদরুল আলম, পর্ষদের ভাইস চেয়ারম্যান নূরুল আমিন প্রমুখ ।