মাকে নির্যাতনকারী সন্তানকে পুলিশে দিলন সাংসদ জগলুল হায়দার

29

নিজস্ব প্রতিবেদক: মা দিবসে মায়ের উপর নির্যাতন করায় ছেলেকে  ধরে এনে পুলিশের হাতে তুলে  দেন সাংসদ জগলুল হায়দার। রবিবার বিশ্ব মা দিবসের দিনে মা বাবাকে মারপিট করে হাসপাতালে পাঠানোর সংবাদ শোনামাত্রই মাননীয় সংসদ সদস্য সেই সন্তান আব্দুল আলিমকে (৩২)উচিৎ শিক্ষা দিতে আবহাওয়ার প্রতিকূল পরিবেশে রাত ৯ টার সময় তার বাড়ীতে যান।

এসময় তিনি প্রত্যাক্ষ্যদর্শীদের কাছে ঘটনার সত্যতা জানার পর নিজেই শ্যামনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে ফোন করেন। শ্যামনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সৈয়দ আব্দুল মান্নান ফোর্স নিয় ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে সংসদ সদস্য নিজেই থানার কর্মকর্তার হাতে রবিউলকে সোপর্দ করেন। সংসদ সদস্য এসময় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেন যথাযথ আইনের ব্যাবস্থা নিতে। এসময় সংসদ সদস্য উপস্থিত সকলের উদ্দেশ্যে বলেন-“আজ বিশ্ব মা দিবসে সকল সন্তানেরা ভাবছে কীভাবে সকল মাকে ভালোবাসা যায়, শান্তিতে রাখা যায় আর ঠিক সেই দিনে এই বেয়াদব সন্তান তার মাকে মেরেছে একে কোন ভাবেই ক্ষমা করা যায়না”। তিনি আরো বলেন -“আজ যদি মাকে অসম্নান করা এই বেয়াদবকে ছেড়ে দেই তাহলে অনেকেই এই ধরনের কাজ করতে সাহস পেয়ে যাবে”। সংসদ সদস্য কঠোর কন্ঠে বলেন মাকে অসম্নান করা কোন সন্তানকে কোন ভাবেই ছাড় দেওয়া হবেনা, সে যেই হোকনাকেন।”

উল্লেখ্য, শ্যামনগর উপজেলার কাশিমাড়ী ইউনিয়নের কাঠালবাড়িয়া গ্রামে নিজ সন্তানের কাছে মার খেয়ে বাবা ও মা এখন হাসপতালে চিকিৎসাধীন আছেন।আহতরা হলেন, জুম্মান গাজীর ছেলে সাবুর আলী গাজী (৫৫), ও তার স্ত্রী রাশিদা খাতুন(৫০)।রোববার সকালে ঘুম থেকে চিকিৎসার খরচ চাইতে ছেলে আব্দুল আলিমের সাথে বাকবিতন্ড শুরু বাবা সাবুর আলীর। এক পর্যায় রাগানিত্ব হয়ে আলিম বাবাকে মারতে শুরু করে। এ সময় মা রাশিদা এগিয়ে আসলে তাকে ও মারধর করা হয়। পরে গ্রামবাসীরা তাদেরকে উদ্ধার করে শ্যামনগর সদর হাসপতালে ভর্তি করে।

হাসপতালে চিকিৎসারত রাশিদা বেগম বলেন, আমার ছেলে কিছুদিন অাগে ভাটায় কাজকরে বাড়িতে এসে বউয়ের কথা শুনে আমাদের গায়ে হাত তুলেছে, ছেলের বউ সব সময় ছেলে কে উস্কানি দেয়। যার কারনে ছেলে আমাদেরকে দেখতে পায়না বলে অভিযোগ করেন। অারো বলেন, অামার ছোটো মেয়ের পেট কাটা তাকেও অনেক মেরেছে। কিছু অাগে অানছার মেম্বার এর সামনেও বিরাট মারিলো অমার, এসব কথা বলছিলো অার অঝরঝরে কাদছিলো রাশিদা খাতুন।