খাস জমির উপর ভুমিহীনদের আইনগত অধিকার রয়েছে–মেনন

3

রংপুর অফিসঃ “যারা খাস জমি ভুমিহীনদের না দিয়ে বিত্তশালীদের হাতে তুলে দেয়,জমির দখল পেলেও সেই জমির দখল বুঝিয়ে দেয় না; তারা আইনের দৃষ্টিতে অপরাধী। একথাটি ভুলে গেলে চলবে না যে, খাস জমির উপর ভুমিহীনদের আইনগত অধিকার রয়েছে। কাজেই ভুমিহীনদের বঞ্চিত করলে কাউকেই আর ছাড় দেয়া হবেনা বলে সাফ জানিয়ে দিলেন সমাজকল্যাণমন্ত্রী ও বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির প্রধান জনাব রাশেদ খান মেনন এমপি।”

বুধবার বিকালে উত্তরাঞ্চলের গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জ থানায় জাতীয় কৃষক সমিতি গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে জনাব মেনন সাধারণ কৃষক-দিনমজুর ও খেটে খাওয়া মানুষের ভুমি বঞ্চনা নিয়ে নানাদিক তুলে ধরেন। বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির এই বর্ষীয়ান সভাপতি উত্তরাঞ্চলের নানা প্রান্ত থেকে আগত কয়েক হাজার কৃষকের উদ্দেশ্যে বলেন-“আপনারাই আমাদের দেশের উন্নয়নের মূল কারিগর।আপনারা ফসল উৎপাদন করেন বলেই আমরা বাচি।দেশের খাস জমি আপনাদেরই প্রাপ্য।অথচ এই ন্যায্য দাবী আদায়ে আপনাদের নানা হয়রানীর স্বীকার হতে হয়। এখন আর মুখবুজে বসে থাকা নয়।এবার সময় এসেছে আপনাদের লড়াই করে অধিকার আদায় করার।খাস জমি পাওয়া আপনাদের ন্যয্য অধিকার। এ অধিকার থেকে কেউ আপনাদের ফেরাতে পারবে না।এজন্য আপনাদের ঐক্য ধরে রাখতে হবে।”

সমাজকল্যাণমন্ত্রী ২০১৮ কে অত্যান্ত তাৎপর্যবাহী বছর হিসেবে আখ্যায়িত করেন।তিনি বলেন এ বছরটি হচ্ছে নির্বাচনের বছর। নির্বাচনের বছরে নানা দিক থেকে নানা প্রলোভন কৃষকদের কাছে আসবে। নির্বাচন ফুরিয়ে গেলে কৃষকদের খবর আর কেউই রাখবে না। মন্ত্রী কৃষকদের জন্য জোট সরকারের নানা উদ্যোগ তুলে ধরে বলেন-“কেবল বর্তমান সরকারই কৃষক,মজুরদের কথা ভাবে।এ সরকার কৃষকদের জন্য ১০ টাকায় ব্যাংক একাউন্ট খোলার ব্যাবস্থা নিয়েছে,অত্যান্ত সহজ শর্তে কৃষি ঋণ প্রদান করছে।এখন কৃষকদের খাস জমি প্রদানেও এসরকারই বড় অগ্রণী ভুমিকা রাখবে।”

সমাজের পিছিয়ে পড়া,বৃদ্ধ, বিধবা, হতদরিদ্র,বেদে,দলিত সহ সকল পিছিয়ে থাকা জনগোষ্ঠীর জীবন মানের উন্নয়ন ঘটাতে সমাজকল্যাণ মন্ত্রনালয়ের সকল কর্মকর্তাদের বিষের নজর দিতে নির্দেশনা প্রদান করে বলেন-“বিধবা ভাতা,বয়স্কভাতা থেকে শুরু করে সকল ধরনের ভাতা উন্মুক্ত বাছাইকরণ করতে হবে।সমাজকল্যাণে কোনরকম অনিয়ম বরদাশত করা হবে না।”

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জাতীয় কৃষক সমিতির কেন্দ্রীয় সভাপতি, কৃষকনেতা আমিনুল ইসলাম।

আরও বক্তব্য রাখেনন, জাতীয় কৃষক সমিতির গাইবান্ধা জেলার সাধারণ সম্পাদক এম এ মতিন মোল্যা, দিনাজপুর জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান প্রমুখ।