প্রগতি লেখক সংঘের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী

14

যুগবার্তা ডেস্কঃ ব্রিটিশ-শাসিত ভারত ও অবিভক্ত বাংলার প্রগতিশীল লেখকদের প্রাথমিক প্রচেষ্টায় ১৯৩৬ সালে লক্ষ্ণৌতে এ অঞ্চলের প্রগতি সাহিত্য আন্দোলনের যাত্রা শুরু হয়। ওই বছরের ১০ এপ্রিল জাতীয় কংগ্রেসের অধিবেশনস্থলের পাশে সর্বভারতীয় এক সাহিত্যিক সম্মেলনে প্রগতি লেখক সংঘ প্রতিষ্ঠিত হয়। এর মধ্য দিয়ে সাহিত্য-সংস্কৃতিতে সাম্রাজ্যবাদ-ফ্যাসিবাদ বিরোধী যে আন্দোলনের সূচনা হয়েছিল, তার প্রভাব ছড়িয়ে পড়েছিল সমগ্র ভারতবর্ষে।

লড়াই-সংগ্রাম ও ঐতিহ্যে ৮২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে প্রগতি লেখক সংঘের দীপ্ত পথচলা অঙ্গিকার। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ প্রগতি লেখক সংঘ আয়োজন করে আনন্দ-সম্মিলন। জৌলুশ বা আড়ম্বরপূর্ণ ছিল না এ সম্মিলন। কবিতা-গান আর শুভেচ্ছা বিনিময়ের মধ্যে ছিমছাম ছিল। সোয়া তিন ঘন্টাব্যাপী এই আনন্দ-সম্মিলনে কারোরই ˆধর্য্যের বাঁধ ভাঙেনি।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাজধানীর কমরেড মণি সিংহ সড়কের প্রগতি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত আয়োজনে শামিল হয়েছেন যারা প্রগতি লেখক সংঘের দর্শনকে চর্চা করেছেন যুগ যুগ করে। এসেছিলেন প্রবীণ থেকে তরুণরাও। এখানে উঠে এসেছে ৮২ বছরের নানা প্রতিবন্ধকতা, চড়াই-উতরাই পেরিয়ে পথচলার কথা। এ পথচলায় কেবল সাহিত্যচর্চার মধ্যেই প্রগতি লেখক সংঘ নিজেকে সীমাবদ্ধ রাখেনি; একদিকে যেমন গণমানুষের সাহিত্যচর্চার পথ নির্মাণ ও নির্দেশ করেছে, অন্যদিকে গণমানুষের জীবনবোধ ও অধিকার আদায়ের রাজনৈতিক সংগ্রামেও নেতৃত্ব দিয়েছে। স্মরণ করা হয় রোমাঁ রোল্যাঁ, সাজ্জাদ জহীর, হীরেন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায়, রণেশ দাশগুপ্ত, সোমেন চন্দ, সতীশ পাকড়াশীকে।

বাংলাদেশ প্রগতি লেখক সংঘের সাধারণ সম্পাদক কবি সাখাওয়াত টিপুর সূচনা বক্তব্যে দেন।

প্রগতি লেখক সংঘের সভাপতি কবি গোলাম কিবরিয়া পিনুর সভাপতিত্বে ছিল শুভেচ্ছা বিনিময় ও আ্ড্ডা। এ পর্বটি সঞ্চালনা করেন মীর মোশাররফ হোসেন। কথা বলেন প্রগতি লেখক সংঘের সাবেক সভাপতি অধ্যাপক বদিউর রহমান, প্রথম আলো-র যুগ্ম সম্পাদক সোহরাব হোসেন, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির সাধারণ সম্পাদক মো. শাহ আলম, অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক এম এম আকাশ, কবি মতিন ˆবরাগী, কবি ফারুক মাহমুদ, কবি ইকবাল আজিজ, কবি বাবুল আনোয়ার, কবি প্রদীপ মিত্র, কথাসাহিত্যিক শামসুজ্জামান হীরা, লেখক তাহেরা বেগম জলি, উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীর সাধারণ সম্পাদক জামশেদ আনোয়ার তপন, কবি দীপর গৌতম, জাকির হোসেন, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি লাকী আক্তার, গার্মেন্ট শ্রমিকনেতা মঞ্জুর ম্ঈন প্রমুখ।