বাংলাদেশ হবে এয়িশা অঞ্চলে পঞ্চম টাইগার

18

যুগবার্তা ডেস্কঃ সম্প্রতি আইএমএফ-এর এক রিপোর্ট অনুযায়ী দক্ষিণ এশিয়ায় এখন বিনিয়োগের সবচেয়ে আকর্ষনীয় স্থান বাংলাদেশ, অচিরেই এ অঞ্চলের সর্ববৃহৎ অর্থনৈতিক বাজার হবে বাংলাদেশ বলে জানান মাননীয় পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে মিট দ্যা প্রেস অনুষ্ঠানে।

মাননীয় মন্ত্রী আরো বলেন, শুধু বিদ্যুৎ এবং জ্বলানির নিশ্চয়তা দিতে পারলে বিদেশী বিনিয়োগের কোন অভাব হবেনা। এল এনজি আমদানী শুরু হলে, সেই সমস্যা থাকবেনা। সম্প্রতি ভোলায় দুটি নতুন গ্র্যাস ফিল্ড আবিস্কার হয়েছে যা নিজেদের সক্ষমতা ব্যবহারের অর্জন। আমাদের বর্তমান মজুদ আছে ২৭ টিসিএফ গ্যাস যা বর্তমান ধারায় ব্যবহার হতে থাকলে আগামী ১৪ বছরে শেষ হয়ে যেত কিন্তু এ নতুন দুটি গ্যাস ফিল্ড যুক্ত হওয়াতে মজুদ বাড়বে ১.৫ টিসিএফ গ্যাস। গত এক বছরে দেশে সর্বোচ্চ কর্মসংস্থান হয়েছে। গত বছরে ৩৭ লাখ কর্মসংস্থান হয়েছে। এর মধ্যে সর্বোচ্চ ১০ লাখ ৩০ হাজার মানুষ বিদেশে গেছে। দেশে কর্মসংস্থান হয়েছে ১৪ লাখ। এছাড়া এজেন্ট ব্যাংকিংএ ২০০ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হয়েছে। প্রত্যেক গ্রামে এজেন্ট ব্যাংকিং সেবা পৌঁছে গেছে। প্রবৃদ্ধির ক্ষেত্রে অনেকে বলেন আয় বৈষম্য বেশি। অর্ন্তভুক্তিমূলক প্রবৃদ্ধি হচ্ছেনা। কিন্তু আন্তর্জাতিক ওয়াল্ড ইকনোমিক ফোরামের মতে বাংলাদেশ দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে অন্তভুক্তিমূলক প্রবৃদ্ধির ক্ষেত্রে সবচেয়ে এগিয়ে। এমনকি অনেক উপরে অর্থাৎ ৩৭ নম্বরে এসেছে। আমরা এখন প্রকল্প নিচ্ছি গ্রাম শহর সব মিলিয়ে, হাওর অঞ্চলের জন্য বিশেষ প্রকল্প নেওয়া হচ্ছে। আসছে মার্চেই আমরা এলডিসি থেকে বের হওয়ার জন্য যে তিনটি কম্পোনেন্ট রয়েছে তা আমরা একই সাথে অর্জন করব এবং বাংলাদেশই একমাত্র দেশ যারা একই সাথে তিনটি কম্পোনেন্ট অর্জন করে এলডিসি থেকে বের হয়ে যাবে।

মন্ত্রী আরো জানান, আবাসন খাতে প্রবৃদ্ধি ভালো হচ্ছে। রপ্তানি খাতে প্রবৃদ্ধি বেড়েছে ১ দশমিক ৫ শতাংশ থেকে সাড়ে ৮ শতাংশ। প্রবাসী আয় বেড়েছে। পুঁজিবাজার ইনডেক্স ৬ হাজার ১০০ এর উপরে। গড় লেনদেন একদিনে ৭৭৫ কোটি টাকা। তাই বলা যায় পুঁজিবাজার অনেক বেশি ভাইব্রেন্ট। বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ অনেক ভাল। আমরা যে চীনের কাছ থেকে ঋণ নেই। তাদের ঋণ চায়নার মোট জিডিপির তুলনায় দ্বিগুন। সেখানে আমাদের ঋণ নেয়ার হার অনেক কম। দেশে নির্ভরশীল মানুষের সংখ্যা কমছে। অর্থাৎ আগে পরিবারের ১ জন আয় করলে অন্য সব সদস্য তার উপর নির্ভর করতো। এখন এরকম নির্ভরতা কমেছে। রেমিটেন্সের দিক থেকে সারা বিশ্বে আমরা নবম স্থানে রয়েছি।

ব্যাংকিং খাতের ঋণ অনিয়ম বিষয়ক এক প্রশ্নের জবাবে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে শিল্পকারখানা করাকে আমি নিরুতসাহিত করি। চীনে ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে শিল্পকারখানা করার নজির কম। অর্থায়নের উৎস হিসেবে পুঁজিবাজার আদর্শ বিকল্প হতে পারে। তবে পুঁজিবাজার যাওয়ার আগে এর সম্পর্কে পড়াশোনা ও জ্ঞান থাকা প্রয়োজন। অপর এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, যারা দেশ থেকে টাকা পাচার করে বিদেশে ব্যবসা করেন, তারা যখন বুঝবেন দেশে ব্যবসা করাই লাভজনক, তখন আর বিদেশে পাচার করবেন না। বাংলাদেশে বর্তমানে বিনিয়োগের জন্য আকর্ষণীয় জায়গা।
আরেক প্রশ্নের জবাবে বলেন, শিক্ষা ব্যবস্থাকে ঢেলে সাজাতে হবে। বর্তমান বিশ্বের চাহিদা ও প্রয়োজন মেনে জ্ঞান ও প্রযুক্তি নির্ভর এবং হাতে-কলমে শিক্ষা ব্যবস্থার প্রবর্তন করতে হবে। এছাড়া বর্তমানের প্রয়োজনের সঙ্গে আগামীর প্রয়োজন মাথায় থেকে শিক্ষা ব্যবস্থাকে সাজাতে হবে।
এনইসি সম্মেলন কক্ষে মিট দ্যা প্রেস অনুষ্ঠানে এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনা সচিব জিয়াউল ইসলাম, আইএমইডির সচিব মফিজুল ইসলাম, ভৌত অবকাঠামো বিভাগের সদস্য জুয়েনা আজিজ, বিআইডিএস এর মহাপরিচালক কে এস মুর্শিদ এবং বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর মহাপরিচালক আমির হোসেন।