হাসপাতালে ‘বৃক্ষমানবের’ ২ বছর

3

যুগবার্তা ডেস্কঃ আজ ৩০ জানুয়ারি ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকার দুই বছর পূর্ণ হলো বিরল রোগে আক্রান্ত খুলনার আবুল বাজনদারের। ২০১৬ সালের ৩০ জানুয়ারি ‘বৃক্ষমানব’ বলে পরিচিত আবুল এই প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হয়েছিলেন।
গত শনিবার সর্বশেষ আবুল বাজনদারের বাঁ হাতে অস্ত্রোপচার হয়েছে। এ নিয়ে ছোট-বড় ২৪টি অস্ত্রোপচার হয়েছে আবুলের দুই হাত ও দুই পায়ে। গতকাল সোমবার আবুল বাজনদার মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলেন, ‘আছি মোটামুটি।’
আবুল বাজনদার ‘এপিডার্মোডিসপ্লাসিয়া ভেরাসিফরমিস’ রোগে আক্রান্ত। রোগটি ‘ট্রি ম্যান’ (বৃক্ষমানব) সিনড্রোম নামে পরিচিত। ১৫ বছর বয়স থেকে আবুলের হাত ও পায়ের মাংস শিকড়ের মতো করে বাড়তে থাকে। ১০ বছর ভোগার পর তিনি ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি হন। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের পঞ্চমতলার পৃথক একটি কক্ষে পরিবার নিয়ে থাকেন আবুল। আবুলের সব খরচ বহন করে সরকার।
আবুল বাজনদারের চিকিৎসায় সাত সদস্যের মেডিকেল বোর্ড গঠন করে ঢাকা মেডিকেল। বোর্ড সদস্যরা যুক্তরাজ্য ও অস্ট্রেলিয়ার বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে করণীয় বিষয়ে পরামর্শ করেন। এ ছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের একটি পরীক্ষাগারে আবুলের রক্ত, টিস্যু ও লালার নমুনা পাঠানো হয়েছিল। পরীক্ষায় ক্যানসার শনাক্ত হয়নি। চিকিৎসকেরা বলেছেন, জিনগত ত্রুটির কারণে আবুল বাজনদারের এই রোগটি দেখা দিয়েছে।
জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের সমন্বয়কারী অধ্যাপক সামন্তলাল সেন বলেন, গত শনিবার আবুলের হাতে সফল অস্ত্রোপচার হয়েছে। তাঁকে সুস্থ করে তোলার ব্যাপারে আমরা আশাবাদী। সামন্তলাল সেন আরও বলেন, নির্মাণাধীন শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে আবুল বাজনদারকে একটি চাকরি দেওয়ার কথা সক্রিয়ভাবে ভাবা হচ্ছে।-প্রথমআলো