দেশে সুশাসন নেই, সরকার সাংবিধানিক দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ: এরশাদ

70

বর্তমান সরকার তার সাংবিধানিক দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশেষ দূত হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। তিনি বলেছেন, ‘গণতন্ত্রের অন্যতম শর্ত হচ্ছে, জনগণের জানমালের নিরাপত্তা বিধান করা। এটা সরকারের দায়িত্ব, যেকোনো সরকারের সাংবিধানিক দায়িত্ব। বর্তমান সরকার সেই সাংবিধানিক দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হয়েছে।’

আজ সোমবার রাজধানীর বনানীতে জাতীয় পার্টির কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন এরশাদ।

দেশে বিচারহীনতার সংস্কৃতি চলছে বলেও অভিযোগ করেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান। তিনি বলেন, ‘দেশে সুশাসন নেই। আর সুশাসন ছাড়া গণতন্ত্র অর্থহীন।’ চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তার করতে, দলীয় ক্যাডারদের নিয়ন্ত্রণ করতে ও প্রশাসনকে দলীয় প্রভাবমুক্ত করার দাবি জানান তিনি। প্রশাসনে রাজনৈতিক হস্তক্ষেপের কারণে বর্তমানে দেশে দুঃসহ পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে বলেও দাবি করেন সাবেক এই রাষ্ট্রপতি।

গাইবান্ধায় আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্যের হাতে শিশু গুলিবিদ্ধ হওয়ার ঘটনা উল্লেখ করে এরশাদ বলেন, ‘এ সরকারের আমলে শিশুরা নিরাপদ যে নয়, তা আমরা এর আগেও দেখেছি রাকিব, রাজন ও রবিউল হত্যার মধ্য দিয়ে। এমনকি মায়ের পেটেও শিশু সুরাইয়া গুলিবিদ্ধ হয়। আমি তখনই এ ঘটনার প্রতিবাদ করেছিলাম, মানববন্ধন করেছিলাম। দাবি জানিয়েছিলাম, অবিলম্বে এই হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হোক।’

সে সঙ্গে দেশের সার্বিক আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নতির জন্য জোর দাবি জানিয়েছিলেন বলেও সংবাদ সম্মেলনে জানান এরশাদ।

বর্তমান সরকার দেশে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নতি ঘটাতে পারেনি বলেও এ সময় দাবি করেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান। দেশে বিদেশি নাগরিক হত্যার ঘটনার উল্লেখ করে এরশাদ বলেন, শুধু সাধারণ মানুষই নয়, বিদেশি নাগরিকরাও এখন বাংলাদেশে নিরাপদ নন। ফলে আন্তর্জাতিক মহলে দেশের ভাবমূর্তি বিনষ্ট হচ্ছে।

দেশে সুশাসনের অভাব ও বিচারহীনতার সংস্কৃতির কারণেই এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে বলে দাবি করেন এরশাদ।