২০১৮ সালের নির্বাচনে আমরা যদি পরাজিত হই তাহলে আমাদের উপর কত বড় প্রতিশোধ নেবে—মেনন

শামীম আহমেদ, বরিশালঃ বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টি কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ও বেসরকারী বিমান ও পর্যটন মন্ত্রী রাসেদ খান মেনন বলেছেন ২০১৮ সালের নির্বাচনে আমরা যদি পরাজিত হই তাহলে আমাদের উপর ২০০১ থেকে ২০০৬ সালের দল কত বড় প্রতিশোধ নেবে তা আপনারা চিন্তা করেননা। তাই আগামী নির্বাচন খুবই গুরুত্বপূর্ন আমাদের দূর্নীতি লুঠপাঠের দলের বিরুদ্বে কাজ করতে হবে। আমরা ২০৮ সালের নির্বাচনে সাম্প্রদায়ীক শক্তিকে পরাজিত করেছিলাম এবং ১৪ সালের নির্বাচন সাফল্যের সাথে সম্পূর্ন করেছি।
তিনি আরো বলেন ইতি মধ্যে দেশে চালের মজুদ শুরু হয়ে গেছে সেই সাখে বেড়েছে চালের দাম। চালের বাজার নিয়ন্ত্রনে আনার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানান।

শুক্রবার সকালে অশ্বিনী কুমার টাউন হলে সন্ত্রাস-সাম্প্রদায়ীকতা-জঙ্গিবাদ বিরোধী সংগ্রাম জোড়দার করার লক্ষে আগামী ৩০ই ডিসেম্বর ডাকার মহাসমাবেশ সফল করার জন্য বরিশাল জেলা কমিটি আয়োজিত এক কর্মী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন।

বরিশাল জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি অধ্যাপক নজরুল হক নিলুর সভাপতিত্বে কর্মী সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় পলিটব্যুরো এ্যাড.মোস্তফা লুৎফুল্লা, কেন্দ্রীয় নেতা বজলুর রহমান মাষ্টার, জেলা কমিটির সাধারন সম্পাদক এ্যাড. শেখ মোঃ টিপু সুলতান, জেলা নতা শাহজাহান তালুকদার, মুলাদী উপজেলা সাধারন সম্পাদক সেলিম চৌধুরী প্রমুখ।

কেন্দ্রীয় সভাপতি রাসেদ খান মেনন আরো বলেন বাংলাদেশ আজ রোহিঙ্গা সমস্যা নিয়ে বড় ধরনের এক সংকটে রয়েছে।

বর্তমান প্রধান মন্ত্রী রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে বিশ্বে এক উদাহরন সৃষ্ঠি করেছে। আমাদের চট্রগ্রাম নিয়ে বহু পূর্ব থেকে ষড়যন্ত্র চলছে এরই ধারাবাহিকতায় ১৯৭৮ সাল থেকে ২০১৬-১৭ সাল পর্যন্ত রাখাইনে নির্যাতন করে এদেশে রোহিঙ্গাদের ঠেলে দিচ্ছে।

তিনি আরো বলেন বিএনপি-জামাত অপশক্তির বিরোদ্বে লড়াই করতে হলে আমাদের ১৪দলের সকলকে ঐক্যবদ্ব ভাবে কাজ করার জন্য দলীয় কর্মীদের প্রতি আহবান জানান।

এছাড়া সংসদ সদস্য এ্যাড.মোস্তফা লুৎফুল্লা বলেন আমাদের সামনে বাধ ভাংঙ্গা দিন আসতে পারে যা ছুটলে ঠেকানো যাবেনা।তাই আমাদের কর্মীদের কর্মসূচি নিয়ে প্রতিটি জনগনের দার প্রান্তে যেতে হবে জনগনকে দলে সম্পূক্ত করার জন্য কর্মীদের প্রতি আহবান জানান ।
অপরদিকে বিকেলে বাবুগঞ্জের রাকুদিয়ায় প্রয়াত কমরেড নুরুল আলম শরীফের স্মরণ সভায় মেনন প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন।