১৯তম বিশ্ব ছাত্র-যুব উৎসবে রাশিয়া যাচ্ছেন সা‌বেক ছাত্র‌নেতা সুজন

যুগবার্তা ডেস্কঃ আগামি ১৫-২১ অক্টোবর ২০১৭ রা‌শিয়ার স‌চি‌তে অনু‌ষ্ঠিতব্য ১৯তম বিশ্ব ছাত্র-যুব উৎস‌বে যোগ দি‌তে আজ বৃহস্পতিবার রা‌শিয়ার উ‌দ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ কর‌েছেন বাংলা‌দেশ ছাত্র মৈত্রীর সা‌বেক কেন্দ্রীয় সভাপ‌তি ও ছাত্র সংগ্রাম প‌রিষ‌দের সা‌বেক সমন্বয়ক র‌ফিকুল ইসলাম সুজন। এ‌শিয়া প্যা‌সি‌ফিক ইয়ুথ এন্ড স্টু‌ডেন্টস ফেডা‌রেশ‌নের বাংলা‌দেশ কা‌ন্ট্রি কোঅ‌র্ডি‌নেটর হি‌সে‌বে তি‌নি বাংলা‌দে‌শের অপরাপর যুব নেতৃবৃ‌ন্দের সা‌থে এ উৎস‌বে যোগ দি‌চ্ছেন। তি‌নি এর আ‌গে গত ২০১০ সা‌লে দ‌ক্ষিণ আ‌ফ্রিকায় অনু‌ষ্ঠিত ১৮তম উৎস‌বেও যোগ দি‌য়ে‌ছি‌লেন।
উ‌ল্লেখ্য, বিশ্ব গণতান্ত্রিক যুব ফেডারেশনের (WFDY) উদ্যোগে রাশিয়ার সচিতে অনুষ্ঠিত হবে ৭ দিনব্যাপী ১৯তম বিশ্ব ছাত্র-যুব উৎসব। প্রতি চার বছর অন্তর এ উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু এবা‌রের উৎসব অনু‌ষ্ঠিত হ‌চ্ছে সাত বছর পর। এবারের উৎসবের মূল প্রতিপাদ্য For Peace, Solidarity and Social Justice we struggle against imperialism – Honoring our past we build the Future” বা “শান্তি, সংহতি ও সামাজিক ন্যায়বিচারের লক্ষ্যে সাম্রাজ্যবাদের বিরুদ্ধে আমাদের লড়াই- অতীতের সংগ্রামী ইতিহাসকে ধারণ করেই আমরা আমাদের ভবিষ্যৎ বিনির্মানে প্রতিশ্রুতিশীল”। এবারের উৎসবে বাংলাদেশসহ মোট ১৮৮টি দেশের প্রায় ত্রিশ হাজার ছাত্র ও যুব নেতৃবৃন্দ যোগদান করবেন। বাংলা‌দেশ থে‌কে বি‌ভিন্ন সংগঠ‌নের মোট ৮৫জন প্র‌তি‌নি‌ধি এবা‌রের উৎস‌বে যা‌চ্ছেন।
সাম্রাজ্যবাদ, পুঁজিবাদী বিশ্বায়ন, সাম্প্রদায়িকতা, বৈষম্য ও সন্ত্রাসবাদের বিপরীতে World Federation of Democratic Youth (WFDY) বা বিশ্ব গণতান্ত্রিক যুব ফেডারেশন-এর সুস্পষ্ট অবস্থান। মানবিক ও সাম্যের বিশ্ব গড়ার প্রত্যয়ে, প্রগতির পতাকা উর্ধে তুলে ধরে এক হয়ে কাজ করায় অঙ্গিকারাবদ্ধ বিশ্বের বৃহত্তম এই যুব সংগঠনটি । বিভিন্ন দেশের জাতিগোষ্ঠী ও সম্প্রদায়ের মানুষ, তাদের জীবন ও সংগ্রাম, সামাজিক ও রাজনৈতিক অবস্থান, অধিকার ও স্বীকৃতি, সংস্কৃতি ও শিল্প-সাহিত্য এবং আন্দোলন নিয়ে এই সংগঠন আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে গুরুত্বের সাথে দায়িত্ব পালনে সচেষ্ট; সাম্রাজ্যবাদকে পরাভূত করার মধ্য দিয়েই যা অর্জিত হবে।
বাংলাদেশেসহ বিশ্বের প্রায় সকল দেশের ছাত্র-যুবনেতৃবৃন্দ এই উৎসবে অংশগ্রহণ করে থাকেন।
সাবেক ও বর্তমান প্রজন্মের ছাত্র-যুব আন্দোলনের নেতা-কর্মীর সমন্বয়ে দেশে দেশে জাতীয় প্রস্তুতি কমিটি গঠনের মধ্যদিয়েই মূলত উৎসবের প্রারম্ভিক সূচনা হয়। দেশে দেশে জেলা, জাতীয়, আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বিভিন্ন সভা, সেমিনার, সংবাদ সম্মেলন ও নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে সাম্রাজ্যবাদের বিপক্ষে শান্তি, সংহতি ও ন্যায়বিচারের শ্লোগান উচ্চারিত হয়। প্রায় বছরব্যাপী এসব আয়োজনে বিপুল সংখ্যক ছাত্র-যুব-তরুণ অংশগ্রহণ করে থাকে। এরই অংশ হিসেবে বিশিষ্ট অর্থনীতিবীদ অধ্যাপক ড. এমএম আকাশকে চেয়ারম্যান করে ২৬টি ছাত্র-যুব-শ্রমজীবী ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের সমন্বয়ে জাতীয় প্রস্তুতি কমিটি গঠিত হয়।
উৎসবে যোগদানের উদ্দেশ্যে গত ১০ ও ১১ অ‌ক্টোবর বাংলা‌দে‌শের দু‌টো প্র‌তি‌নি‌ধি দল ঢাকা ত্যাগ ক‌রে‌ছে। আজ তৃতীয় দল‌টি যাত্রা কর‌বে। আজ রাত ১০ টা ফ্লাই দুবাই এর এক‌টি ফ্লাই‌টে তৃতীয় দল‌টি রা‌শিয়ার রাজধানী ম‌স্কো‌তে রওয়া হয়। ১৪-২১ অক্টোবর ১৯তম বিশ্ব ছাত্র-যুব উৎসবের আনুষ্ঠানিক অধিবেশনসমূহে তারা যোগ দেবেন। রাশিয়ায় অবস্থানকালে তারা বিভিন্ন দেশের নেতৃবৃন্দের সাথে দ্বিপাক্ষিক আলোচনা ও মতবিনিময়ে অংশ নেবেন। সেখানে তারা বাংলাদেশসহ বিশ্বযুবসমাজের পক্ষে, সাম্রাজ্যবাদের বিরুদ্ধে বিশ্বজনমত গঠন এবং শান্তি, সৌর্হাদ্য ও ন্যায়বিচারের প্রতিষ্ঠায় সোচ্চার ভূমিকা পালন করবেন।
আগামি ২৫ অক্টোবর তারা বাংলাদেশে ফিরবেন।