হামিদ পুনরায় রাষ্টপতি নির্বাচিত

যুগবার্তা ডোস্কঃ বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পুনরায় রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ নির্বাচিত হয়েছেন। প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা তাকে নির্বাচিত ঘোষণা করেন বুধবার।

এর পরই রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের গেজেট প্রকাশ করা হয়। গতকাল সন্ধ্যায় গণভবনে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে দেখা করে ওই গেজেট তাঁর হাতে তুলে দেন সিইসি ও অন্য চার নির্বাচন কমিশনার।

এর আগে রাষ্ট্রপতি পদে দাখিল হওয়া মনোনয়নপত্র গতকাল সকালে পরীক্ষা করেন সিইসি। এ সময় জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজসহ আওয়ামী লীগের প্রতিনিধিদলের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। পরে দুপুর সাড়ে ১২টায় নির্বাচন ভবনের মিডিয়া সেন্টারে সিইসি আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলন করে জানান, প্রথমত মনোনয়নপত্র বৈধ হওয়ায় এবং আর কোনো প্রার্থী না থাকায় মো. আবদুল হামিদকে একক প্রার্থী হিসেবে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রাষ্ট্রপতি ঘোষণা করা হয়। সিইসি বলেন, ‘রাষ্ট্রপতি পদের মনোনয়নপত্র পরীক্ষার পর মো. আবদুল হামিদ একমাত্র বৈধ প্রার্থী হওয়ায় রাষ্ট্রপতি নির্বাচন আইন ১৯৯১-এর ধারা ৭ মোতাবেক তাঁকে নির্বাচিত ঘোষণা করছি। ’ তিনি বলেন, আগামী ২৩ এপ্রিল নতুন রাষ্ট্রপতি হিসেবে মো. আবদুল হামিদ শপথ নিতে পারেন।

এক প্রশ্নের জবাবে সিইসি বলেন, রাষ্ট্রপতি পদে মো. আবদুল হামিদের পক্ষে তিনটি মনোনয়নপত্র দাখিল করা হয়েছিল। প্রথমটিতে প্রস্তাবক ওবায়দুল কাদের ও সমর্থক তোফায়েল আহমেদ।

দ্বিতীয় মনোনয়নপত্রে প্রস্তাবক রাশেদ খান মেনন ও সমর্থক আ স ম ফিরোজ। তৃতীয় মনোনয়নপত্রের প্রস্তাবক হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ ও সমর্থক মো. আতিউর রহমান আতিক। প্রথম মনোনয়নপত্র পরীক্ষায় বৈধ হওয়ায় দ্বিতীয় ও তৃতীয়টি পরীক্ষার প্রয়োজন হয়নি।
ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ১০ ফেব্রুয়ারি। ভোট হওয়ার কথা ছিল ১৮ ফেব্রুয়ারি। ওই সময়ের আগে প্রজ্ঞাপন জারির বিষয়ে সিইসি বলেন, রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের আইন অনুযায়ী এটি বৈধ প্রক্রিয়া। আইনে বলা আছে, রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের জন্য একক প্রার্থী হলে যাচাই-বাছাই শেষে প্রজ্ঞাপন জারি করা যাবে। যদি একাধিক প্রার্থী পাওয়া যায়, সে ক্ষেত্রে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার বা নির্বাচনের প্রশ্ন আসে।

আব্দুল হামিদের পুনরায় রাষ্টপতি নির্বাচিত হওয়ায় কিশোরগঞ্জ বাসীরা মিষ্টি বিতরন করেছেন।