হাওরের ইজারা বাতিল করে গরিব মানুষকে অবাধে মাছ ধরার সুযোগ দিন

যুগবার্তা ডেস্কঃ হাওরের ইজারা বাতিল করে সকলের জন্য অবাধে মাছ ধরার সুযোগ সৃষ্টি করার জন্য সরকারের কাছে জোড় দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ ক্ষেতমুজর সমিতির নেতৃবৃন্দ। হাওরের মানুষের দুঃখ-দুর্দশা প্রকট আকার ধারণ করেছে উল্লেখ করে নেতৃবৃন্দ বলেন হাওরবাসীকে বাঁচাতে অবিলম্বে হাওর অঞ্চলকে দুর্গত এলাকা ঘোষণা করতে হবে। শুক্রবার সকালে মুক্তিভবনের মৈত্রী মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত কেন্দ্রীয় কমিটির সভায় নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, প্রতিবছর বাজেট হয় কিন্তু সাধারণ গরিব মানুষের ভাগ্যের কোন পরিবর্তন হয় না। বাজেটে ক্ষেতমজুর সহ গ্রামীণ মজুরদের জন্য পর্যাপ্ত পৃথক বরাদ্দের দাবি জানানো হয়। বাজেটে গ্রামের মানুষের জন্য অল্প যা বরাদ্দ থাকে তাও লুটপাট হয়ে যায় উল্লেখ করে নেতৃবৃন্দ বলেন বরাদ্দের বাড়ানোর পাশাপাশি তা যেন সত্যিকার অর্থেই গরিব ক্ষেতমজুররা পায় তারও ব্যবস্থা করতে হবে। সভায় নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে পল্লী রেশনিং এর মাধ্যমে ৬ কোটি ক্ষেতমজুর সহ গ্রামীণ মজুরদের মধ্যে চাল, ডাল, তেল, লবন ইত্যাদি নিত্যপণ্য দেওয়ার দাবি করেন। ‘১০টাকা কেজি দরের চাল’ বিতরণে ব্যাপক লুটপাট ও দুর্নীতি হচ্ছে অভিযোগ করে নেতৃবৃন্দ বলেন, যে হতদরিদ্রদের জন্য এ চাল বরাদ্দ করা হয়েছে তারা পায় না। এ চাল যাচ্ছে সরকারি দলের লোকসহ গ্রামের সচ্চল পরিবারের হাতে।

ক্ষেতমজুর সমিতির সভাপতি অ্যাড. সোহেল আহমেদ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় রিপোর্ট উত্থাপন করেন সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন রেজা। সভায় বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাবেক সভাপতি ও বর্তমান সদস্য শামছুজ্জামান সেলিম। রিপোর্টের ওপর আলোচনায় কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ বলেন, গ্রামে-গঞ্জে শক্তিশালী ক্ষেতমজুর সমিতি গড়ে তুলে সংখ্যাগরিষ্ঠ অথচ বঞ্চিত এ জনগোষ্ঠির ন্যায়সঙ্গত দাবি আদায় করতে হবে। রিপোর্টের ওপর আলোচনা করেন সহ-সভাপতি মৃন্ময় মন্ডল, আব্দুর রেজ্জাক, রফিকুল ইসলাম, সদস্য শাহাবুদ্দিন আহমদ, আনোয়ার হোসেন, মোজাহারুল ইসলাম, সাহা সন্তোষ, হাফিজার রহমান দুদু, মশিউর রহমান মঈশাল, আলী আক্কাস, হাফিজুল ইসলাম, মফিজার রহমান, আশরাফুল আলম, ডা. আবু তাহের ভুঞা, মুজিবুল হক, আব্দুল করিমসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। সভায় সাংগঠনিক রিপোর্ট উত্থাপন করেন সহ-সাধারণ সম্পাদক অর্ণব সরকার। সভার শুরুতে শোক প্রস্তাব উপস্থাপন করেন আরিফুল ইসলাম নাদিম।
সভায় নেতৃবৃন্দ হাওর অঞ্চলকে দুর্গত এলাকা ঘোষণার দাবি জানিয়ে বলেন হাওরের কৃষকের পাশাপাশি ক্ষেতমজুররা আজ বেকার হয়ে পড়েছে। পরিবার পরিজন নিয়ে তারা অসহায় জীবন যাপন করছেন। নেতৃবৃন্দ হাওরের ইজারা বাতিল করে অবাধে সকলের মাছ ধরার সুযোগ দেওয়ার জন্য সরকারের প্রতি জোড় দাবি জানান। নেতৃবৃন্দ হাওরবাসীর জন্য বিনামূল্যে খাদ্য সামগ্রী, ঋণ মওকুফ করে নতুন ঋণ প্রদান এবং সহায়তা বিতরণে অনিয়ম রোধে কার্যকর ভূমিকা রাখার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।