হবিগঞ্জে কামান বিধ্বংসী ১০ রকেট উদ্ধার

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি :

ভারতের ত্রিপুরা রাজ্য সীমান্তবর্তী হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার সাতছড়ির গহীন অরণ্য থেকে র‌্যাবের অভিযানে আবারো অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। এবারের অভিযানে ১০টি কামান বিধ্বংসী রকেট উদ্ধার ।

শুক্রবার (২ ফেব্রুয়ারি) রাত থেকে এ অভিযান চালায় র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-৯) ও বম্ব ডিজপোজাল ইউনিট।

র‌্যাবের লিগ্যাল এন্ড মিডিয়া উইং এর পরিচালক মুফতি মাহমুদ খান শনিবার (৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ২টায় প্রেস বিফ্রিংয়ের এর মাধ্যমে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।  সাতছড়ি জাতীয় উদ্যান থেকে এ নিয়ে পঞ্চমবারের মতো অস্ত্র উদ্ধার করা হলো।

তিনি জানান,  গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে শুক্রবার (২ ফেব্রুয়ারি) রাত থেকে সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানে বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করা হয়। তারপর একটি ব্যাংকার থেকে প্লাস্টিকের প্যাকেটে মোড়ানো ১০ কামান বিধ্বংসী রকেট উদ্ধার হয়।  তবে এ অস্ত্রগুলো কে বা কারা ব্যবহার করার জন্য এখানে রেখেছে, তা তদন্তে বেরিয়ে আসবে বলে তিনি জানান।

সাতছড়িতে অস্ত্র উদ্ধারের ব্যাপারে র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ ব্রিফিং করার কথা ছিল। কিন্তু কুয়াশার কারণে তার হেলিকপ্টার আসতে পারেনি।

ব্রিফিংয়ের পূর্বে রকেট সম্পর্কে ধারণা দেন র‌্যাব-৯ এর ল্যাফটেন্যান্ট কর্ণেল আলী হায়দার আজাদ। তিনি বলেন, এ রকেট দিয়ে দূরে থাকা ট্যাংক ধ্বংস করা হয়।

সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে আরো উপস্থিত ছিলেন- হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসক মনীষ চাকমা, চুনারুঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাইজার মো. ফারাবী, হবিগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আ.স.ম শামছুর রহমান ভূঁঞা, সহকারি পুলিশ সুপার এস এম রাজু আহমেদ, র‌্যাব-৯ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) মনিরুজ্জামান, চুনারুঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কে.এম আজমিরুজ্জামান, মাধবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) চন্দন কুমার চক্রবর্তী।

উল্লেখ্য, এর আগে ২০১৪ সালের ১ জুন থেকে ১৯ জুন পর্যন্ত টানা অভিযান চালানো হয় সাতছড়ি জাতীয় উদ্যানে। এরপর গত ২ সেপ্টেম্বর দ্বিতীয় দফায়, ১৭ সেপ্টেম্বর তৃতীয় দফা এবং ১৬ ও ১৭ অক্টোবর চতুর্থ দফায় অভিযান চালায় র‌্যাব। এসব অভিযান থেকে ১২টি বাংকার ও মেশিনগান, রকেট লাঞ্চার, রকেট চার্জার, বিমান বিধ্বংসী বুলেট, ট্যাংক বিধ্বংসী রকেটসহ বিপুল পরিমাণ আগ্নেয়াস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার হয়।