স্মৃতি শক্তি ভাল রাখতে খান তাল

3

ডেস্ক রিপোর্ট: : তাল কচি ও পাকা দুই অবস্থায়ই খাওয়া যায়। তাল যেমন নানাভাবে খাওয়া যায়, তেমনি তালের পুষ্টিগুণও অনেক। পাকা তালের প্রতি ১০০ গ্রাম খাদ্যযোগ্য অংশে রয়েছে-খাদ্যশক্তি ৮৭ কিলোক্যালরি,জলীয় অংশ ৭৭.৫ গ্রাম,আমিষ .৮ গ্রাম,চর্বি .১ গ্রাম,শর্করা ১০.৯ গ্রাম,খাদ্য আঁশ ১ গ্রাম,ক্যালসিয়াম ২৭ মিলিগ্রাম,ফসফরাস ৩০ মিলিগ্রাম,আয়রন ১ মিলিগ্রাম,থায়ামিন .০৪ মিলিগ্রাম,রিবোফ্লাভিন .০২ মিলিগ্রাম,নিয়াসিন .৩ মিলিগ্রাম,ভিটামিন সি ৫ মিলিগ্রাম

উপকারিতা:
১। তাল এণ্টি অক্সিডেণ্ট সমৃদ্ধ হওয়ায় কান্সার প্রতিরোধে সক্ষম। এ ছাড়া স্বাস্থ্য রক্ষায়ও তাল ভুমিকা রাখে। স্মৃতি শক্তি ভাল রাখে।
২। তাল ভিটামিন-বি এর আধার। তাই ভিটামিন-বি এর অভাবজনিত রোগ প্রতিরোধে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে থাকে।
৩। তালে প্রচুর পরিমান ক্যালসিয়াম ও ফসফরাস রয়েছে। যা দাঁত ও হাড়ের ক্ষয় রোধে সহায়ক ভুমিকা পালন করে।
৪। অন্ত্রের রোগ ও কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে তাল বিশেষ অবদান রাখে।

যাদের জন্য তাল খাওয়া নিষেধ:
১। যারা উচ্চ রক্তচাপে ভুগছেন তারা ডিমের কুসুম ও দুধ মিশ্রিত কোন খাবার খাওয়া থেকে বিরত থাকুন।
২। যাঁদের ডায়াবেটিস বা কোলেস্টেরল বেশি তারা তালের পিঠা খাওয়া থেকে বিরত থাকুন।আমাদের সময়.কম