সাম্রাজ্যবাদ মৌলবাদ নিপাত যাক

8

খান আসাদ: ধর্মীয় মৌলবাদ, ধর্মসন্ত্রাস ও ফ্যাসিবাদী আত্মপরিচয়ের রাজনীতি নিয়ে সামগ্রিকভাবে কথা বলুন। বৈশ্বিক সংহতি ও ঐক্যের ভিত্তি তৈরি হোক।
ভারতে নরেন্দ্র ধাবালকর, গোবিন্দ পানসারে, এম কালবুর্গী, গৌরী লঙ্কেশ, এই মুক্তমনাদের ভুলে যাবেন না। এরা হিন্দু মৌলবাদী ফ্যাসিস্টদের হাতে খুন হয়েছেন। আমেরিকায় রয়েছে শতাধিক বর্নএগেইন খৃষ্টান মৌলবাদী ঘাতক সংগঠন। ইউরোপে বর্নশ্রেষ্ঠত্ববাদী, বিশেষকরে জার্মানিতে নিওনাৎসিদের উত্থান ঐ একই ফ্যাসিস্ট রাজনীতি।
কোন সন্দেহ নাই, মুসলমান মৌলবাদীরা বেশি পরিচিত, বেশি ঘৃণিত ও বেশি মাত্রায় আলোচিত। এর একটি কারণ সাম্রাজ্যবাদী নীতি (ইসলাম ভার্সেস ওয়েস্ট) ও মুসলমান মৌলবাদের সাংগঠনিক, রাজনৈতিক, সাংকৃতিক ও সামরিক কাজ অনেক বেশি, এবং আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে, যা অন্যদের তুলনায় ভিন্ন।
সমস্যাটাকে একটি বিশেষ ধর্মসম্প্রদায়ের (শুধু মুসলমানের) হিসেবে দেখানোটা নিজেই একটি সাম্প্রদায়িক অবস্থান। নিজে সাম্প্রদায়িকতামুক্ত হোন। ধর্মীয় মৌলবাদ পুঁজিবাদের সংকটের প্রকাশ ও প্রগতিশীল বিকল্প গড়ে না ওঠার ফাঁকে গজিয়ে ওঠা আগাছা। এই আগাছে সব সমাজেই গজিয়েছে। ফলে, জাতীয় আন্দলনা হতে হবে বৈশ্বিক আন্দোলন ও বৈশ্বিক বৈষম্যমূলক ব্যবস্থা রূপান্তরের সংগ্রামের সাথে ও সমান্তরালে।
সাম্রাজ্যবাদ মৌলবাদ নিপাত যাক। সাম্য ও শান্তির দুনিয়া চাই।লেখক: একজন মুক্তচিন্তার মানুষ ও জার্মান প্রবাসী।

*মতামত বিভাগে প্রকাশিত সকল লেখাই লেখকের নিজস্ব ব্যক্তিগত বক্তব্য বা মতামত।