সামাজিক আন্দোলনের ঢাকা নগর প্রস্তুতি কমিটি

যুগবার্তা ডেস্কঃ ক্ষমতা দখলের স্বপ্নে কথিত গণতন্ত্র উদ্ধারের আন্দোলনের নামে লুটেরা, দুর্নীতিবাজদের অপকর্ম আড়াল করার হীনচেষ্টা চালানো হচ্ছে। দলবাজি আর দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন, জঙ্গিবাদের মদতদাতারা যখন গণতন্ত্রর কথা বলে তখন বুঝতে হবে জনতার সাথে নতুন করে বিশ্বাস ঘাতকতার গভীর ষড়যন্ত্র চলছে। আমাদের রাজনীতিতে দুর্নীতি, লুটেরা ধনিক বণিকেরা আজ সুপ্রতিষ্ঠিত, বছরের পর বছর তারা লুটপাট চালিয়ে রাষ্ট্রীয় ব্যাংক সমুহ আজ দেওলিয়া হওয়ার পথে। বিরাষ্ট্রীয়করণের নামে জাতিয় সম্পদ লুটেরাদের হাতে তুলে দিয়ে ক্ষমতাসীন দলসমুহ ধারাবাহিকভাবে দেশের মানুষকে যেমন বঞ্চিত করেছে, তেমনি লুটেরাদের পৃষ্ঠপোষকতা করে নিজেদেরকেও লাভবান করেছেন। আজকে সাম্প্রদায়িকতা, জঙ্গিবাদ ও দুর্নীতিবাজ ও সাম্প্রদায়িক শক্তি সমুহের উপর নির্ভর করে রাজনীতিক দলসমুহ ক্ষমতায় যাওয়া ও টিকে থাকার অপচেষ্টা দেশ-জাতিকে বিপন্ন করে তুলবে। ইতিহাস বড় নির্মম ক্ষমতায় গিয়ে যারা মানুষের উপর অত্যাচার অনাচার করেছে পৃথিবীর ইতিহাসে তাদের কোন না কোন সময়ে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হয়েছে। বাংলাদেশেও এর ব্যতিক্রম আমরা দেখছি না, গরীব এতিমদের জন্য আসা সাহায্য যারা লুট করতে পারেন তাদের হাতে দেশ কতটা নিরাপদ তা ভেবে দেখে দেখার সময় এসেছে। একই সাথে আমরা মনে করি মুক্তিযুদ্ধের পর থেকে অদ্যবদি যারা দেশের সম্পদ পাচার করেছে, লুট করেছে ক্ষমতার অপব্যবহার করে নিজেদের আখের গুচিয়েছে রাষ্ট্রয়াত্ব শিল্প কল-কারখানা ধ্বংস করেছে। অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করেছে। যুদ্ধাপরাধী মাফিয়াদের পৃষ্ঠপোষকতা করেছে তাদের সকলকে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হবে। আজকে কথিত গণতন্ত্র উদ্ধারের লড়াইয়ে সচেতন জনগণ অংশ নিবে না বলে আমাদের বিশ্বাস। সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন ঢাকা মহানগর কর্মী সম্মেলনে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সালেহ আহমেদ উপরোক্ত মন্তব্য করেন।

রোববার সকালে সংগঠনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ঢাকা মহানগর শাখার সদস্য-সচিব অধ্যক্ষ সিরাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে ঢাকা মহানগর শাখার কর্মীসভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনায় অংশনেন কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কাজী সালমা সুলতানা, সাংগঠনিক সম্পাদক বাপ্পাদিত্য বসু, সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য ইয়াসরেমিনা বেগম সীমা, ফাহমিনা কাশেম মিশু, কেন্দ্রীয় নেতা এম শফিউর রহমান খান বাচ্চু, মোঃ কামরুজ্জামান, ঢাকা মহানগর নেতা জাহাঙ্গীর আলম ফজলু, প্রকৌশলী আজিজুর ইসলাম, বেলায়েত হোসেন, অধ্যাপক আব্দুল জব্বার, জাহিদুর রহমান, তানভির তমিজ প্রমুখ।

সভায় অধ্যক্ষ সিরাজুল ইসলামকে আহ্বায়ক ও জাহাঙ্গীর আলম ফজলুকে সদস্য-সচিব করে ৬১ সদস্য বিশিষ্ট ঢাকা মহানগর সম্মেলন ২০১৮ প্রস্তুতি কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক যথাক্রমে- ড. সেলু বাসিত, প্রকৌশলী আজিজুর ইসলাম, বেলায়েত হোসেন, অধ্যাপক আব্দুল জব্বার, মোঃ কামরুজ্জামান, রফিকুল ইসলাম জাহিদ ও সুব্রত সানা।