সরকার প্রথমবারের মতো মোংলা বন্দরের আউটারবার এলাকায় ড্রেজিং কাজ শুরু করেছে–নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

12

খুলনা অফিসঃ নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি বলেছেন, সরকার অভ্যন্তরীণ নৌপথে ১০ হাজার কিলোমিটার নৌপথ খনন ও সংরক্ষণের ধারাবাহিকতায় সমুদ্র বন্দরগুলোর আধুনিকায়ন এবং গতিশীল করার লক্ষ্যে কাজ করছে। প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার সরকার দেশের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো মোংলা বন্দরের আউটারবারে (সমুদ্রের মুখ এলাকা) ড্রেজিংয়ের কাজ শুরু করেছে।
প্রতিমন্ত্রী আজ মোংলা বন্দরের আউটারবার ড্রেজিং প্রকল্প ও অন্যান্য উন্নয়নমূলক কার্যক্রম পরিদর্শনকালে এসব কথা বলেন।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, সরকারের ইতিবাচক পদক্ষেপের ফলে মোংলা বন্দরে জাহাজ আগমনের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। ড্রেজিং কাজ সমাপ্ত হলে জাহাজ আগমনের সংখ্যা আরো বাড়বে। বাংলাদেশ অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হবে।
উল্লেখ্য, মোংলা বন্দরের এ্যাংকোরেজ (জাহাজ নোঙ্গর করার স্থান) এলাকা পর্যন্ত সাড়ে ১০ মিটার ড্রাফটের জাহাজ আনায়নের লক্ষ্যে বন্দর চ্যানেলের আউটারবারে ( সমুদ্রের মুখ এলাকা ) ড্রেজিং প্রকল্প গ্রহণ করেছে মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ। আউটারবারের ১১ কিলোমিটার এলাকায় এক কোটি তিন লাখ ৯৫ হাজার ঘন মিটার মাটি ড্রেজিংসহ প্রকল্পের জন্য ব্যয় ধরা হয়েছে ৭১২ কোটি ৫০ লাখ টাকা। গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে শুরু হওয়া ড্রেজিংয়ের কাজটি চলতি বছরের জুনে শেষ হওয়ার জন্য নির্ধারিত রয়েছে । প্রকল্পের মেয়াদ ২০২০ সালের ডিসম্বরে শেষ হবে। এপর্যন্ত তিনটি ড্রেজারের মাধ্যমে প্রায় ২৫ লাখ ঘনমিটার মাটি ড্রেজিং হয়েছে।
হংকং রিভার ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি লিমিটেড ও চায়না সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং কন্সট্রাকশন কোম্পানি যৌথভাবে ড্রেজিং কাজ করছে।
মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ আউটারবার ড্রেজিং প্রকল্পসহ মোট চারটি প্রকল্প ৮২২ কোটি ৫৩ লাখ টাকা ব্যয়ে বাস্তবায়ন করছে। অন্য প্রকল্পগুলো হলোঃ ভেসেল ট্রাফিক ম্যানেজমেন্ট এন্ড ইনফরসমশন সিস্টেম স্থাপন, সারফেস ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্ট স্থাপন ও মোংলা বন্দরের হারবার চ্যানেলের ফুড সাইলো এলাকায় ড্রেজিং।
নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ভোলা নাথ দে, মোংলা বন্দরের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল এম মোজাম্মেল হক, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম প্রধান রফিক আহাম্মদ সিদ্দিক, মোংলা বন্দরের সদস্য প্রকৌশল আলতাফ হোসেন, প্রকল্প পরিচালক বজলুর রহমান এসময় উপস্থিত ছিলেন।