সরকারকে বিব্রত করতে আমাকে অপহরণ : আদালতে ফরহাদ মজহার

যুগবার্তা ডেস্কঃ সরকারকে বিব্রত করতেই আমাকে অপহরণ করা হয়েছিল বলে জানিয়েছেন কবি ও কলামিস্ট ফরহাদ মজহার। মঙ্গলবার আদালতে ১৬৪ ধারায় দেয়া স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতেএ কথা বলেছেন তিনি। ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিমের আদালতের সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

আদালতে ফরহাদ মজহার বলেছেন, ‘সরকারকে বিব্রত করতেই আমাকে চোখ বেঁধে অপহরণ করা হয়েছিল। কে বা কারা অপহরণ করেছিল, আমি তাদের চিনি না।’

মঙ্গলবার বেলা পৌনে ৩ টায় ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি গ্রহণের জন্য ফরহাদ মজহারকে আদালতে নেয়া হয়। এর আগে সোমবার রাত ১১টার দিকে যশোরের অভয়নগর থেকে ঢাকার উদ্দেশে ছাড়া যাত্রীবাহী একটি বাস থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়।

ঢাকার মহানগর হাকিম আহসান হাবীব মঙ্গলবার বিকালে তার খাস কামরায় ১৬৪ ধারায় ফরহাদ মজহারের বিচারিক জবানবন্দি রেকর্ড করেন। পরে ১০ হাজার টাকার মুচলেকায় স্বাক্ষর নিয়ে তাকে নিজের জিম্মায় বাড়ি ফেরার অনুমতি দেন বিচারক।

পুলিশ দুপুরে ফরহাদ মজহারকে আদালতে হাজির করার পর তাকে নিজের জিম্মায় যাওয়ার অনুমতি চেয়ে আবেদন করেন আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া। ফরহাদ মজহারের স্ত্রী ফরিদা আখতার, মেয়ে সমতলী হক, ভাগ্নে মেজর ফেরদৌসসহ কয়েকজন পারিবারিক বন্ধু এ সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

শুনানিতে সানাউল্লাহ মিয়া বলেন, ‘ফরহাদ মজহারের মামলার বিষয় আমরা কিছুই জানি না। জবানবন্দিতে কী বলেছেন তাও জানি না। আপনি কি দয়া করে আমাদের জানাবেন?’

উত্তরে বিচারক বলেন, ‘এটা ৩৮৫ এবং ৩৬৫ ধারার মামলা; অর্থাৎ অপহরণ ও চাঁদাবাজি সংক্রান্ত অপরাধ। ফরহাদ মজহার জবানবন্দিতে আমার কাছে কী বলেছেন, তা আপনাকে আমি বলতে পারি না। সে বিষয়ে পুলিশ ব্রিফ করবে।’

এরপর বিচারক আদালতে উপস্থিত ফরহাদ মজহারকে প্রশ্ন করেন, ‘আপনি কি নিজের জিম্মায় যেতে ইচ্ছুক?’ উত্তরে ফরহাদ মজহার বলেন, ‘জি, আমি ইচ্ছুক।’-আমাদের সময়.কম