সমাজসেবা সাংবিধানিক দায়িত্ব: সমাজকল্যাণমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক:

সমাজসেবা সাংবিধানিক দায়িত্ব, এটা অবহেলা করার সুযোগ নেই মন্তব্য করে সমাজকল্যাণ মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেছেন, সরকারিভাবে পরিচালিত ‘শিশু পরিবারের’ সদস্যদের সহযোগিতায় সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসতে হবে।এজন্য সবাইকে নিজ অবস্থানে থেকে সহযোগিতার আহ্বান জানান তিনি।

সোমবার রাজধানীর তেজগাঁওয়ে সরকারি শিশু পরিবারের ৬ জন নিবাসীর বিবাহত্তোর সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতাকালে এসব কথা বলেন মন্ত্রী। সরকারি শিশু পরিবার ঢাকা (তেজগাঁও) ও জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের উদ্যোগে এ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।

তিনি বলেন,সামাজিক কর্মকাণ্ড পরিচালনার দায়িত্ব শুধুমাত্র সরকারের একার নয়, দেশকে এগিয়ে নিতে এই কর্মকান্ড পরিচালনায় সমাজের সকল স্তরের মানুষের অংশগ্রহণ আবশ্যক ।

মন্ত্রী বলেন, সরকারি পরিবারে যারা বেড়ে উঠছে তারা পিতৃমাতৃহীন। তাদেরকে সমাজের মূল স্রোতধারায় সম্পৃক্ত করতে সমন্বিত উদ্যোগের মাধ্যমে তাদের দক্ষ ও যোগ্য করে গড়ে তুলতে হবে।সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব গ্রহণ করার সময়ে ধারণা ছিল না যে, জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত এই জীবনচক্রে জড়িত থাকার সুযোগ রয়েছে এই মন্ত্রণালয়ে।

নিবাসীরা হলেন, লিপি আক্তার, সাবিনা চৌধুরী, স্বপ্না বেগম,তানিয়া আক্তার,মাজেদা বেগম ও হাজেরা লাকী।

পাত্ররা হলেন, কুমিল্লার সাইফুল ইসলাম ভূইয়া, ঠাকুরগাঁয়ের কসির উদ্দীন,পটুয়াখালীর হারুন অর রশীদ, গাজীপুর জেলার শাহজালাল, ফরিদপুর জেলার রবিউল ইসলাম এবং চাদঁপুর জেলার মো. সোহাগ।

তেজগাঁও সরকারি শিশু পরিবার(বালিকা)’র উপতত্বাবধায়ক ঝর্না জাহিন বলেন, এখানে দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকে এই নিবাস থেকে এ পর্যন্ত ১৮ জনকে বিয়ে দেয়ার ব্যবস্থা করেছি। এদের জীবনের সফলতার গল্প আছে। এইসব মেয়েদের অনেকে প্রবাসে থাকে। মাঝে মাঝে দেশে আসে। এখনও ওরা যোগাযোগ রাখে।

তিনি বলেন, আন্তরিকতা থাকলে সবার সহযোগিতা পাওয়া যায় বলে বিশ্বাস করি। সমাজের সকলে এগিয়ে আসলে যে কোন কাজ অসাধ্য নয়।অন্য নিবাসের মতো এখানকার মেয়েরাও নানা কারিগরী ও খেলাধূলায় দক্ষ।তাদেরকে এগিয়ে নিতে সবার সহযোগিতার প্রয়োজন রয়েছে।

অনুষ্ঠানে সমাজকল্যাণ মন্ত্রী রাশেদ খান মেননের সহধর্মিনী লুৎফুন্নেসা খান, সমাজসেবা অধিদফতরের মহাপরিচালক গাজী মুহাম্মদ নুরুল কবীর, সমাজকল্যান মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব সুশান্ত কুমার প্রামানিক, অতিরিক্ত সচিব আলী নূর, ঢাকার জেলা প্রশাসক সালাহ্উদ্দীন, ২৪ নং ওয়ার্ড কমিশনার শফিউল্লাহ সফিপ্রমুখ।