সকল প্রকার মত প্রকাশের স্বাধীনতাও চরম বিপদের মুখে পড়বে–ওয়ার্কার্স পার্টি

যুগবার্তা ডেস্কঃ বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্যুরো সম্প্রতি মন্ত্রীসভায় অনুমোদিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ৩২ ধারাসহ নিপীড়ণমূলক ধারাসমূহ বাতিল করে পুনঃপ্রণয়ণের আহবান জানিয়েছে। বুধবার ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্যুরোর এক বিবৃতিতে বলা হয় দেশের মানুষের দাবির প্রেক্ষিতে সরকার তথ্য-প্রযুক্তি আইন-২০১৩-এর ৫৭ ধারা পুনর্বিবেচনার উদ্যোগ নেয়ায় জনমনের উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা দূরীকরণের যে আশা সৃষ্টি হয়েছিল, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন-২০১৮ অনুমোদনের মধ্য দিয়ে তা তিরোহিত হয়েছে কেবল নয়, আরও বেশি ভয় ও শংকার জন্ম দিয়েছে। এই নতুন আইনে তথ্য-প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারা বাতিল করা হলেও, তাকেই নতুন ও আরও কঠিন রুপে পুন:সংযোজিত করা হয়েছে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের বিভিন্ন ধারায়। বিশেষ করে ৩২ ধারায়। এই ধারা বহাল রাখা হলে সংবাদপত্রের ও সাংবাদিকতার স্বাধীনতা কেবল ক্ষুন্ন হবে না, সকল প্রকার মত প্রকাশের স্বাধীনতাও চরম বিপদের মুখে পড়বে। উল্লেখিত ৫৭ ধারার চেয়েও এর যথেচ্ছার প্রয়োগের সুবিধা রাখা হয়েছে ডিজিটাল আইনের ৩২ ধারাসহ আর অপর কয়েকটি ধারায়। বিশেষ করে অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে এ সকল ধারা বড় ধরনের বাধা হয়ে দাঁড়াবে।

ওয়ার্কার্স পার্টির বিবৃতিতে বলা হয় সাইবার অপরাধ দমনের জন্য আইনের প্রয়োজনীয়তা পার্টি অস্বীকার করে না, বরং প্রয়োজন বলেই মনে করে। কিন্তু তা যদি নিপীড়নের হাতিয়ার হয়ে দাড়ায় তখন তা গ্রহণযোগ্য হতে পারে না। বিবৃতিতে বলা হয়, সার্বিক বিবেচনায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন-২০১৮ প্রত্যাহার করে নিয়ে সংশ্লিষ্ট সকল মহলের সাথে আলোচনা করে পুনঃপ্রণয়নের আহবান জানান হয়।