রেজানুর রহমানের ঈদের নাটক দবির মিয়ার সুখ দুঃখ

ডেস্ক রিপোর্ট: ভালোবাসার অনেক শক্তি। ভালোবাসা অমানুষকে মানুষ হিসেবে গড়ে তোলে। ভোলোবাসাই মূলতঃ বেঁচে থাকার প্রেরণা। ভালোবাসা না থাকলে, মানুষ মানুষের জন্য আকর্ষণ বোধ করতো না। আমাদের পৃথিবীটা বোধকরি এতো সুন্দর হতো না। সেই ভালোবাসাই রেজানুর রহমানের এবারের ঈদের নাটকের মূল বিষয়। নাটকের নাম দবির মিয়ার সুখ দুঃখ।
চ্যানেল আইতে ঈদের আগের দিনের নাটক মানেই রেজানুর রহমানের নাটক। সেই ধারাবাহিকতায় রেজানুর রহমান এবারও নির্মাণ করেছেন ঈদের বিশেষ নাটকÑ দবির মিয়ার সুখ দুঃখ। দবির মিয়া একটি মেয়ের ভালোবাসা পাবার জন্য ব্যাকুল। তার ধারনা মেয়েটি যদি একবার বলে আমি তোমাকে ভালোবাসি তাহলে পুরো পৃথিবীটা জয় করতে পারবে সে। কিন্তু ভালোবাসতেও যোগ্যতা লাগে। ডিগ্রী লাগে, অর্থবিত্ত লাগে। আবার সৌন্দর্য্যও ভালোবাসার ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখে। এর কোনোটাই নেই দবির মিয়ার। এই নিয়ে প্রতিদিন মেয়েটি দবির মিয়াকে কটাক্ষ করে, তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য করে। একদিন কথা প্রসঙ্গে দবির মিয়াকে একটি শর্ত দেয় মেয়েটি। সামনের সুউচ্চ ভবন দেখিয়ে বলে, দবির যদি সাত তলার ছাদ থেকে লাফ দিতে পারে তাহলে দবির যা বলবে তাই মেনে নিবে।
দবির মিয়া সত্যি সত্যি সাততলার ছাদ থেকে লাফ দেয়। তার করুণ মৃত্যু হয়। নাটকের ক্লাইমেক্স শুরু হয় এখান থেকেই।
নাটকে দবির মিয়ার চরিত্রে অভিনয় করেছেন বিশিষ্ট অভিনেতা শাহাদাৎ হোসেন। এই নাটকে তিনি দ্বৈত চরিত্রে অভিনয় করেছেন। নাটকে আরও অভিনয় করেছেন স্বাগতা, জিয়াউল হাসান কিসলু, মিলি বাসার, অলিউল হক রুমি সহ বিভিন্ন নাট্য সংগঠনের এক ঝাক তরুণ কর্মী। ক্যামেরায় ছিলেন ইভানুল হক কনক। আবহসঙ্গীতে রয়েছেন বিপ্লব বড়ূয়া।
চ্যানেল আইতে ঈদের আগের দিন সন্ধ্যে ৭টা ৫০ মিনিটে ‘দবির সাহেবের সুখ দুঃখ’ প্রচার হবে।