মোহাম্মদ নাসিম অসময়ে চলে গেলেন–ইনু

3

ডেস্ক রিপোর্টঃ ১৪ দল আয়োজিত মোহাম্মদ নাসিমের ভার্চুয়াল শোকসভায় হাসানুল হক ইনু এমপি প্রয়াত নেতা মোহাম্মদ নাসিমের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন, তিনি অসময়ে চলে গেলেন। তিনি ছিলেন রাজপথের নির্ভীক সৈনিক। তিনি স্বৈরাচার-সাম্প্রদায়িকতা-জঙ্গিসন্ত্রাস-আগুনসন্ত্রাস বিরোধী রাজনৈতিক প্রতিরোধের নেতা। তিনি সংসদে ও রাজপথে সমানতালে ভূমিকা রেখেছেন। ১৪ দলের সমন্বয়ক হিসাবে তিনি ঐক্যের রাজনীতির প্রতিক হয়েছিলেন। মোহাম্মদ নাসিম আপদমস্তক রাজনীতিক ছিলেন। তাই তার শোকসভায় চলমান রাজনীতির বিশ্লেষন করা প্রাসঙ্গিক ও প্রয়োজনীয়। জনাব ইনু বলেন, জঙ্গি-সন্ত্রাসী চক্র আড়ালে গেলেও বসে নেই। ফিরে আসার গোপন প্রস্তুতি নিচ্ছে। তিনি বলেন, আমাদের আলোচনা করা উচিৎ করোনা পরিস্থিতিতে সরকারের করণীয় কি ছিল, সরকার কি করেছে। তিনিব বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী করোনা এবং অর্থনীতিতে করোনার অভিঘাত মোকাবেলায় বিশাল পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। তবে এটা স্বীকার করতেই হবে যে, আর্থ-সামাজিক-রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থাপনায় বেশকিছু ঘাটতি, দুর্বলতা, ত্রুটি প্রকাশ পেয়েছে। অসুস্থ-অস্বচ্ছল-গরীব নিম্নবিত্ত এমনকি মধ্যবিত্তদের সুরক্ষায় ঘাটতি হয়েছে। তিনি বলেন, সংবিধান স্বীকৃত মূলনীতি ও মৌলিক অধিকার বাস্তবায়নের পথে যেতেই হবে। সর্বজনিন স্বাস্থ্য-শিক্ষা-সামাজিক সুরক্ষা-খাদ্য নিরাপত্তা ব্যবস্থা গড়ার দাবি উঠে এসেছে। রাষ্ট্রকে মানবিক হতে হবে। রাষ্ট্র-প্রশাসন ব্যবস্থাপনা পদ্ধতি ও সংবিধান পর্যালোচনা করার সময় এসেছে। জনাব ইনু বলেন, সরকার-প্রশাসনের ভেতরের দুর্নীতিবাজ চক্রকে ধ্বংস করতেই হবে। সমন্বয়হীনতা ও অদক্ষতার সমাধান করতে হবে। তিনি বলেন, আমাদের সামনে চারটি চ্যালেঞ্জ: ১.করোনা জয় করা, ২.বিপর্যস্থ অর্থনীতি উদ্ধার ও সচল করা, ৩.ক্ষতিগ্রস্থ জনগোষ্ঠীর চাওয়া পাওয়ার দ্বন্দ্ব-সংঘাতের ব্যবস্থাপনা করা, ৪.কোনঠাসা জঙ্গিশক্তির পুনরুত্থানের অপতৎপরতা মোকাবেলা করা। তিনি বলেন, করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধে রাষ্ট্র-প্রশাসন যথেষ্ট না। এ জন্য রাজনৈতিক শক্তিকে সামনে আসতে হবে। গণতান্ত্রিক ঐক্য ধরে রাখা এবং সক্রিয় করতে হবে। জনাব ইনু বলেন, দুর্নীতি পুষে রেখে করোনা জয় করা যাবে না। করোনা পুষে রেখে অর্থনীতি সচল হবে না। জনাব ইনু বলেন, ১৪ দলের নেত্রী শেখ হাসিনা অত্যন্ত দ্রুত সময়ের মধ্যে প্রবীণ ও প্রাগ্য জননেতা আমির হোসেন আমুকে ১৪ দলের সমন্বয়ক হিসাবে মনোনীত করে প্রমাণ করেছেন তিনি ১৪ দলের ঐক্যকে গুরুত্ব প্রদান করেন।

১৪ দলের সমন্বয়ক আমির হোসেন আমুর সভাপতিত্বে জুম প্রযুক্তিতে অনুষ্ঠিত এ শোকসভায় বক্তব্য রাখেন তোফায়েল আহমেদ, মতিয়া চৌধুরী, রাশেদ খান মেনন, দিলীপ বড়ুয়া, শেখ শহিদুল ইসলাম, ডা. ওয়াজেদ, নজিবুল বশার মাইজভান্ডারি, ডা. শাহদাত হোসেন, শরীফ নুরুল আম্বিয়া, এড. এনামুল হক, ইসমাইল হোসেন, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আব্দুর রহমান, বাহাউদ্দিন নাসিম প্রমূখ।