মুল্লুক চল’-র চেয়েও বড় সংগ্রাম ও আত্মদানের জন্য চা শ্রমিকদের প্রস্তুত হতে হবে

2

বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (মার্কসবাদী)-এর সাধারণ সম্পাদক কমরেড মুবিনুল হায়দার চৌধুরী এক বিবৃতিতে বলেন- “ঐতিহাসিক ২০ মে এক মহান সংগ্রামের দিন। চা-শ্রমিকদের রক্তক্ষয়ী সংগ্রামের একটি উজ্জ্বল দিন আজ। ১৮৫৪ সালে সিলেটে ব্রিটিশদের উদ্যোগে যখন চা বাগান স্থাপন করা হয় তখন আজীবন কাজ করার শর্তে বিহার, উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ, মাদ্রাজ, পশ্চিমবঙ্গের বাঁকুড়া প্রভৃতি স্থান থেকে শত শত শ্রমিককে নিয়ে আসা হয়। তাদেরকে প্রচুর টাকা পাওয়ার স্বপ্ন দেখানো হয়েছিল।

কিন্তু কাজ করতে এসে তাদের স্বপ্নভঙ্গ হয়। জঙ্গলে হিংস্র প্রাণীদের মোকাবেলা করে এই চা বাগান তাদের গড়ে তুলতে হয়েছে। অনেক শ্রমিকের প্রাণহানি হয়েছে। আবার বাঁচার মতো মজুরি, খাবার কিছুই তারা পেত না। সাহেবদের অকথ্য অত্যাচারই লেগেই থাকতো।

এই অবস্থা অনেকদিন ধরে চলতে চলতে একসময় চা শ্রমিকরা বিদ্রোহী হয়ে উঠে। তারা সিদ্ধান্ত নেয় যে তারা এই জায়গায় আর থাকবে না। তারা তাদের পূর্বের আবাসস্থলে ফিরে যাবে। স্লোগান উঠে, ‘মুল্লুক চল’।