মুক্তিযুদ্ধে চেতনা হেফাজতের কাছে আত্মসমর্পণ করেছে

যুগবার্তা ডেস্কঃ আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোটের ৬ শরিক দলের নেতারা বলেছেন, সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণ থেকে গ্রিস দেবী থেমিসের ভাস্কর্য অপসারণ করাই হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধ, বাঙালী সংস্কৃতি ও অসাম্প্রদায়িক চেতনা হেফাজতের কাছে আত্মসমর্পণ করেছে এবং আরও দু’টি শরিক দল এ ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করেনি।
শনিবার জাসদ, ওয়ার্কার্স পার্টি, সাম্যবাদী দল, বাসদ, ন্যাপ, কমিউনিস্ট কেন্দ্র, গণতন্ত্রী পার্টি ও তরিকত ফেডারেশনের নেতাদের সঙ্গে আলাপকালে তারা এ প্রতিবেদককে এসব কথা বলেন।
বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্যুরোর সদস্য বিমল বিশ্বাস বলেছেন, সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণ থেকে গ্রিস দেবী থেমিসের ভাস্কর্য অপসারণ করাই হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধ, স্বাধীনতার চেতনা, বাঙালী সংস্কৃতি ও অসাম্প্রদায়িক চেতনা হেফাজতের কাছে আত্মসমর্পন করা। এটা গোটা জাতি ও জনগণের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর পদক্ষেপ।
বাংলাদেশের সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া বলেন, যাদের কথায় সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণ থেকে ভাস্কর্য সরিয়ে নেওয়া হয়েছে-কিন্তু তার পরও তারা কোনোদিন খুশি হবে না। এই অপশক্তি সব সময় বিএনপি-জামায়াতের সঙ্গে থাকবে।
বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ) একাংশ আহবায়ক রেজাউর রশীদ খান বলেন, সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণ থেকে গ্রিস দেবী থেমিসের ভাস্কর্য সরিয়ে দেওয়া হচ্ছে আমাদের সংবিধানের চার মূলনীতি ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পুরোপুরি বিরোধীতা করা। এটা কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না।
ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (ন্যাপ) মুজাফ্ফর সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক বলেন, মৌলবাদী জঙ্গিশক্তি বিভিন্ন ইস্যু সৃষ্টি করে দেশকে ধ্বংস করার চেষ্টা করে। সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণ থেকে কর্তৃপক্ষের ভাস্কর্য সরিয়ে নেওয়া ঠিক হয়নি। এটাও গভীর ষড়যন্ত্রেরও একটি অংশ।
জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সম্পাদক রোকেয়া সুলতানা আনজু বলেন, সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণ থেকে ভাস্কর্য সরিয়ে নেওয়া ঠিক হয়নি। এতে মৌলবাদীদের সাহস আরও বেড়ে গেল।
বাংলাদেশের তরিকত ফেডারেশনের মহাসচিব লায়ন এম এ আউয়াল এমপি বলেন, কোর্টের নির্দেশনায় সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণ থেকে ভাস্কর্য সরানো হয়েছে, তাই এ ব্যাপারে আমি কোনো মন্তব্য করতে চাই না।
গনতন্ত্রী পার্টির সাধারণ সম্পাদক ডা শাহাদাৎ হোসেন বলেন, কোর্টের নির্দেশে ভাস্কর্য সরানো হয়েছে, এটা কোর্টের ব্যাপার। ফলে এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করছি না।-আমাদের সময়.কম