মানবেন্দ্র নারায়ন লারমার মৃত্যুবার্ষিকী ও জুম্ম জাতীয় শোকদিবস পালিত

যুগবার্তা ডেস্কঃ আজ মানবেন্দ্র নারায়ন লারমার ৩৪তম মৃত্যুবার্ষিকী ও জুম্মজাতীয় শোকদিবস পালিত হয়।
১৯৮৩ সালের ১০ নভেম্বর গভীর রাতে জাতীয় বিশ্বাসঘাতক বিভেদপন্থী ও অপরিনামদর্শী গিরি-প্রকাশ -দেবেন-পলাশ  চক্রের অতর্কিত সশস্ত্র হামলায় তার ৮সহযোগীসহ গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যুবরণ করেন জুম্মজনগণের প্রাণের মানুষ মহান বিপ্লবী নেতা মানবেন্দ্র নারায়ন লারমা। আজ মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি বান্দরবানে সকালে প্রভাতফেরি, পুষ্পস্তবক অর্পণসহ শোকসভা অনুষ্ঠিত হয়।
উচসিং মারমার সভাপতিত্বে শোকসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও আঞ্চলিক পরিষদের মাননীয় সদস্য জননেতা কে এস মং মারমা, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পার্টির কেন্দ্রীয় সদস্য ও আঞ্চলিক পরিষদের সম্মনীত সদস্য জননেতা সাধুরাম ত্রিপুরা মিল্টন, পার্টির কেন্দ্রীয় শিক্ষা ও সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক জননেতা জলিমং মারমা, পার্টির কেন্দ্রীয় ভূমি বিষয়ক সম্পাদক জননেতা চিংহ্লামং চাক, পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি বান্দরবান জেলা কমিটির সংগ্রামী সভাপতি জননেতা উছোমং মারমা, আরো বক্তব্য দেন হিল উইমেন্স ফেডারেশন বান্দরবান জেলা সভানেত্রী শ্রীমতি শান্তিদেবী তঞ্চঙ্গ্যা, পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ী ছাত্র পরিষদ বান্দরবান জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক ছাত্রনেতা প্রুনুঅং মারমা, বান্দরবান সরকারি কলেজ শাখার সভাপতি ছাত্রনেতা থোয়াইক্যাজাই চাক। সভা সঞ্চালনা করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি বান্দরবান সদর থানা কমিটির সাধারণ সম্পাদক পুশৈথোয়াই মারমা। সভার শুরুতে জুম্মজনগণের আত্মনিয়ন্ত্রণাধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামের বীর শহীদদের উদ্দেশ্যে শোক শোকপ্রস্তাব পাঠ করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি বান্দরবান সদর থানা কমিটির সহ- সাধারণ সম্পাদক সুজয় চাকমা।