মাওয়া কাঁঠালবাড়ী নৌ ও ফেরি রুট সচল রাখতে নৌপ্রতিমন্ত্রীর নির্দেশ

মুন্সিগঞ্জ সংবাদদাতাঃ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী যে কোন উপায়ে মাওয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌ ও ফেরি রুট সচল রাখতে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষকে (বিআইডব্লিউটিএ) নির্দেশ দিয়েছেন।

তিনি আজ মুন্সিগঞ্জের মাওয়া এবং মাদারীপুরের কাঁঠালবাড়ী ঘাট পরিদর্শনকালে এ নির্দেশ দেন।
এসময় অন্যান্যের মধ্য বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান কমডোর এম মাহবুব উল ইসলাম, বিআইডব্লউিটিসির চেয়ারম্যান প্রণয় কান্তি বিশ্বাস, পদ্মা সেতু কর্তৃপক্ষের তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী শফিকুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।
মাওয়া ঘাটটি ২৯ একর জমির ওপর নির্মিত। এখানে ৪ টি লঞ্চ, ৪ টি ফেরি ও একটি স্পীডবোট ঘাট রয়েছ। প্রতিদিন মাওয়া কাঁঠালবাড়ী রুটে ১৩০০ থেকে ১৫০০ গাড়ি মাধ্যমে প্রায় এক লাখ যাত্রী পারাপার হয়। এ পথটি দেশের দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের ২১ টি জেলার প্রবেশ দ্বার। মাওয়াতে ১৫ টি ফেরি, ৮৭ টি লঞ্চ এবং ২৫০ টি স্পীডবোট চলাচল করে। মাওয়া থেকে কাঁঠালবাড়ীর নৌপথের দূরত্ব প্রায় ১০ কিলোমিটার।
কাঁঠালবাড়ী (ইলিয়াছ আহমেদ চৌধুরী ঘাট) ঘাটটি ২৪ একর জমির ওপর নির্মিত।
প্রতিমন্ত্রী লৌহজং টার্নিং পয়েন্টে ড্রেজিং কার্যক্রম পরিদর্শন করেন। মাওয়া (শিমুলিয়া) কাঁঠালবাড়ী ফেরিরুটে ফেরি ও নৌচলাচল নির্বিঘ্ন রাখতে লৌহজং টার্নিং পয়েন্ট এলাকার দুই কিলোমিটার ভাটিতে প্রায় ৫ কিলোমিটার দৈর্ঘের একটি বিকল্প চ্যানেল তৈরির জন্য বিআইডব্লিউটিএ নিজস্ব ড্রেজার দিয়ে গত ২৭ ফেব্রুয়ারিরথেকে ড্রেজিং শুরু করেছ।