মন্ত্রী-এমপিদের স্বাক্ষর জালিয়াতি রাজশাহীর ৯ নার্স বরখাস্ত

রাজশাহী অফিসঃ বিদেশে প্রশিক্ষণের জন্য স্বাস্থ্যমন্ত্রী, সচিব, বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী এবং এমপিদের স্বাক্ষর জাল করে সুপারিশ করতে গিয়ে গিয়ে ধরা খেয়েছেন রাজশাহীর ৯ জন নার্স। এদের মধ্যে ৮ জনই রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে কর্মরত। আর একজন জেলার পবা সরকারি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এই ৯ নার্সকে বরখাস্ত করেছে।

বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত একটি আদেশ রামেক হাসপাতালে এসে পৌঁছেছে। ওই আদেশের প্রেক্ষিতে তাদের বরখাস্তও করা হয়েছে। রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল রফিকুল ইসলাম সোমবার দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বরখাস্তকৃতরা হলেন, সদরুল ইসলাম, ধরিত্রী রাণী ঘোষ, জোসনা আরা খাতুন, জেবুন্নেসা খাতুন, মেরি মার্গারেট প্রভাতি সেরাও, শরিফুল ইসলাম, তৌহিদুল ইসলাম, এসএম আসাদুল ইসলাম ও খাইরুল ইসলাম।

এদের মধ্যে পবা সরকারি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নার্স হিসেবে কর্মরত আছেন তৌহিদুল ইসলাম। অন্যরা রামেক হাসপাতালে কর্মরত।

রামেক হাসপাতাল সূত্র জানায়, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, নার্সিং কাউন্সিল ও সেবা পরিদপ্তরের একশ্রেণির কর্মকর্তার সমন্বয়ে গঠিত সিন্ডিকেট এই ‘সুপারিশ বাণিজ্য’ করছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী, সচিব, বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী এবং এমপিদের সুপারিশ জাল করে এই সিন্ডিকেট দীর্ঘদিন ধরে জালিয়াতি করে আসছে। ভালো জায়গায় পোস্টিং, নিজ বেতনে পদোন্নতি এবং বিদেশ প্রশিক্ষণের জন্য এ সব জাল সুপারিশ করা হতো। এসবের মধ্যে বিদেশে প্রশিক্ষণের সুপারিশ সবচেয়ে বেশি।

অপরাধীদের পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হবে কি না-জানতে চাইলে রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘এ ধরনের কোনো নিদের্শনা আসেনি। পরবর্তীতে বিষয়টি আইন প্রক্রিয়ায় গেলে তাদের আইন অনুযায়ি বিচার হবে।’