ভূমি মন্ত্রণালয়ের সবার জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে–ভূমিমন্ত্রী

যুগবার্তা ডেস্কঃ ভূমি মন্ত্রণালয়ের সবার জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে। সরকারি কর্মকর্তা এবং কর্মচারীদের জবাবদিহিতা দুই জায়গায় – নিজ ধর্মীয় অনুশাসনের প্রতি এবং রাষ্ট্র ও জনগণের কাছে। ভূমি উন্নয়ন কর মেলাতে উৎসবমুখর পরিবেশে জনগণ তাঁদের ভূমি সেবা গ্রহণ করতে পারবেন – এতে তাঁদের ভোগান্তি কম হবে। জনগণ ঠিকমত সেবা পেলে ভূমি মন্ত্রণালয়ে কর্মরত সবার জবাবদিহিতা নিশ্চিত হবে।
আজ রাজধানীর সেগুন বাগিচাস্থ বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার এবং জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের যৌথ উদ্যোগে, ‘ভূমি সেবা সপ্তাহ এবং ভূমি উন্নয়ন কর মেলা ২০১৯’ উপলক্ষে স্থাপিত ঢাকার ভূমি সেবা ক্যাম্পের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে আরও বলেন, আমাদের মাইন্ডসেট চেঞ্জ করতে হবে। গতানুগতিক চিন্তা করলে কোন লাভ হবেনা। গুণগত পরিবর্তন আনতে পারলে এবং সিস্টেম ডেভলপমেন্ট করতে পারলে কাজ অনেক সহজ হবে। মন্ত্রী বলেন, সিস্টেম ডেভেলপমেন্টের অংশ হিসেবে আমরা গোটা ভূমি ব্যবস্থাপনা অটোমেশনের উদ্যোগ নিয়েছি। এতে দেশের মানুষ যেমন উপকৃত হবেন তেমন অনাবাসী বাংলাদেশিরাও উপকৃত হবেন।

মন্ত্রী বলেন, আমাদের নির্বাচনী ইশতেহারে ভূমি ব্যবস্থাপনার জটিলতা দূর করা এবং ব্যবহার পরিকল্পনার কথা বলা আছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে আমরা সেইভাবেই কাজ করছি।

মন্ত্রী ভূমি মন্ত্রণালয়ের কর্মচারীদের ধর্মীয় অনুশাসনের কথা স্মরণ করে দিয়ে বলেন, আমাদের কাজ আমাদের ঈমানী দায়িত্ব। দেশের মানুষ যেন ভালোভাবে সেবা পেতে পারে এভাবে আমাদের কাজ করে যেতে হবে। মন্ত্রী তাঁর বক্তব্যের শেষে মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কঠোর ভাবে নির্দেশ প্রদান করেন যেন তাঁদের দ্বারা মানুষের কোন ধরণের হয়রানি না হয়।

এর আগে সেবা ক্যাম্প উদ্বোধনীর পর সেবা ক্যাম্প প্রাঙ্গণে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ভূমি মন্ত্রী বলেন, ভূমি সেক্টরে এখন পরিবর্তনের হাওয়া বইছে। আমরা আমাদের সিনসিয়ারিটি এবং ডেডিকেশন দিয়ে ভূমি সেবা প্রদান করার চেষ্টা করছি। ভূমি সেবা সপ্তাহ এবং ভূমি উন্নয়ন কর মেলার মূল উদ্দেশ্য ভূমি অধিকার নিয়ে জনসচেতনতা বৃদ্ধি করা এবং ভূমি উন্নয়ন কর প্রদানে সবাইকে উদ্বুদ্ধ করা।

অন্য একটি প্রশ্নের জবাবে সাইফুজ্জামান চৌধুরী বলেন, কয়েক বছর আগে সংক্ষিপ্ত পরিসরে ভূমি সেবা সপ্তাহ পালন করা শুরু হলেও এই প্রথমবার দেশব্যাপী ‘ভূমি সেবা সপ্তাহ এবং ভূমি উন্নয়ন কর মেলা’ পালন করা হচ্ছে। এবার একেবারে মাঠ পর্যায়ের ভূমি অফিসে ভূমি সেবা ক্যাম্প স্থাপন করা হয়েছে। অন্যান্য সরকারি বিভাগের মেলার মত এখন থেকে প্রতি বছর এটা পালন করার হবে।

এ ছাড়া আরও বক্তব্য রাখেন, ভূমি সচিব (ভারপ্রাপ্ত) মাকছুদুর রহমান পাটওয়ারী,
ভূমি সংস্কার বোর্ডের চেয়ারম্যান মুনশী শাহাবুদ্দীন, ভূমি আপীল বোর্ডের চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল হান্নান, ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তরের পরিচালক (জরিপ) মোঃ শাহজাহান প্রমুখ। ঢাকা বিভাগের কমিশনার কে এম আলী আজম উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন।

উল্লেখ্য, গতকাল থেকে শুরু হওয়া ভূমি সেবা সপ্তাহ এবং ভূমি উন্নয়ন কর মেলা, ২০১৯ উপলক্ষে ঢাকা মহানগরী অঞ্চলের ভূমি সেবা ক্যাম্প আজ শুধু একদিনের জন্য শিল্পকলা একাডেমির চিত্রশালা ভবনে বসে। আগামীকাল থেকে থেকে আগামী ১৬ এপ্রিল তারিখ পর্যন্ত দেশের অন্যান্য অঞ্চলের মত ঢাকা মহানগরীতেও ভূমি অফিস কিংবা অফিস প্রাঙ্গণে ভূমি সেবা ক্যাম্প নিয়মিত থাকবে।