বিশ্বে মৃত্যু পৌঁনে চার লাখ!

7

রফিকুল ইসলাম সুজনঃ বিশ্ব মৃত্যু পৌনে চাল লাখে পৌঁছেছে। মৃত্যুর মিছিলে এখনও শীর্ষে বিশ্ব মোড়ল যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে এক লাখ ছাড়িয়েছে। তার পরেই আছে ইউরোপের দেশ যুক্তরাজ্য। তবে লাফিয়ে লাফিয়ে আক্রান্ত ও মৃত্যু ল্যাটিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল বেড়েই চলছে। দেশটিতে আগষ্ট মাসে আরও ভয়বহ রুপ নিতে পারে বলে মনে করছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। এখন অবশ্য ইউরোপ ইউনিয়নের অনেক দেশে আক্রান্তের সংখ্যা কমতে শুরু করেছে। কমতে শুরু করায় ইতালী, ফ্রান্স, গ্রীসসহ ইউরোপের কয়েকটি দেশ লকডাউন শিথিল করেছে। তবে নাগরিকদের সামাজিক দূরত্ব মেনে চলতে কিছু বাধ্যকতা রাখা হয়েছে। পড়তে হবে মাস্ক । সংক্রামন দ্রুতগতিতে বেড়ে চলছে আর এক পরাশক্তি রাশিয়া।

এশিয়ার দেশ সৌদী আরবের মসজিদগুলো খুলে দিলেও সময় বেধেঁ দিয়েছে সরকার। পনের মিনিটের বেশী অবস্থান করা যাবে না।মসজিদে ওজু করা যাবেনা। মক্কা এখনও লকডাউন অব্যাহত রেখেছে।
দক্ষিণ এশিয়ার দেশ ভারত ও বাংলাদেশেও সংক্রামণ লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। এ অবস্থায় ভারত লকডাউন কিছুটা শিথিল করলেও আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত লকডাউন বর্ধিত করছে। তবে যেসব অঞ্চলে সংক্রামণ ভাড়বে ঐ এলাকায় এ আইন কার্যকর হবে। শ্রীলংকাশ সংক্রামন বাড়ায় লকডাউন বৃদ্ধি করা হয়েছে। সংক্রামন বেড়ে চলছে পাকিস্তানেও।

চীনের উহান রাজ্যে গত ডিসেম্বরে এই ভাইরাসটির সংক্রমণ শুরু হয়।তারপর একে একে ছড়িয়ে বিশ্বের ১১৩ টি দেশ ও অঞ্চলে। এখনও এই ভাইরাসের কোন ঔষধ আবিস্কার হয়নি। তবে জাপান, চীন, আমেরিকা, কানাডা, ইতালী, কিউবা টিকা আবিস্কারে অনেক দূর এগিয়েছে বলে জানাগেছে। চীন ৯০ শতাংশ কার্যকর একটি টিকা আবিস্কার করেছে বলে জানিয়েছে। বাংলাদেশও টিকা আবিস্কারে কাজ করছে।

বিশ্বে আজকে পর্যন্ত আক্রান্ত ৬২ লাখ ৯৬ হাজার ১৮০জন । সারাবিশ্ব এর মধ্যে মৃত্যু ৩ লাখ ৭৪ হাজার ৪০৫ জন । সুস্থ হয়েছে ২৮ লাখ ৭৪ হাজার ৬৪১ জন। উৎপত্তি দেশ চীনে আক্রান্ত ও মৃত্যু উভয় কমলেও উৎপত্তিস্থল উহানে ফের সংক্রামন দেখা দিয়েছে। দেশটিতে গনহারে পরীক্ষা করা হচ্ছে। এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৪ হাজার ৬৩৪ জন। যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যু ১ লাখ ৬ হাজার ২০৮ জন । যুক্তরাজ্যে মৃত্যু সংখ্যা কমেছে। এ পর্যন্ত দেশটিতে ৩৮ হাজার ৪৮৯ জন। কানাডায় মৃত্যু ৭ হাজার ২৯৫ জন। রাশিয়ায় এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৪ হাজার ৮৫৫ জনের। স্পেনে মৃত্যু ২৭ হাজার ১২৭ জন । ফ্রান্সে মৃত্যু ২৮ হাজার ৮০২ জন। ইরানে এ পর্যন্ত মৃত্যু ৭ হাজার ৭৯৭ জন। ব্রাজিলে মৃত্যু ২৯ হাজার ৩৪১ জন। দেশটিতে আক্রান্ত ৫ লাখ ছাড়িয়েছে। বেলজিয়ামে মৃত্যু হয়েছে ৯ হাজার ৫৩০ জন। ম্যাক্সিকোতো মৃত্যুর সংখ্যা ৯ হাজার ৯৩০ জন। জার্মানে মৃত্যু ৮ হাজার ৯৮৫ জন। সৌদী আরবে মৃত্যু ৫২৫ জন। মালয়েশিয়ায় আক্রান্ত ও মৃত্যু কমে যাওয়ায় লকডাউন তুলে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। দেশটিতে মৃত্যু ১১৫ জন। পাকিস্তানে মৃত্যু ১ হাজার ৫৪৩ জন। ভারত ও বাংলাদেশে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলছে। ভারতে মৃত্যু হয়েছে ৫ হাজার ৪১৩ জন। বাংলাদেশে আক্রান্ত ৪৯’হাজার ৫৪৩ জন। বাংলাদেশে এ পর্যন্ত মৃত্যু ৬৭২ জন।